সেনানিবাসে ‘জেনারেলস্ কনফারেন্স’-এ প্রধানমন্ত্রী , অত্যাধুনিক বিমান বিধ্বংসী মিসাইল তৈরিতে যাচ্ছে বাংলাদেশ

|| বাংলাদেশ সমরাস্ত্র কারখানা অত্যাধুনিক বিমান বিধ্বংসী মিসাইল তৈরি করতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।তিনি বলেন, বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীকে আরও আধুনিক এবং যুগোপযোগী করে তোলার লক্ষ্যে বাংলাদেশ সমরাস্ত্র কারখানা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় বর্তমানে বাংলাদেশ সমরাস্ত্র কারখানা অত্যাধুনিক বিমান বিধ্বংসী মিসাইল এফএন-১৬ (FN-16) তৈরির পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে, যা খুব শিগগিরই বাস্তবে রূপ নেবে।

এ মিসাইল তৈরির ফলে বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনী একটি নতুন মাত্রা অর্জন করবে যা বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশকে নতুন পরিচিতি এনে দেবে বলেও উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী।

বৃহস্পতিবার (২৮ মে) ঢাকা সেনানিবাসে সেনাসদর কনফারেন্স রুমে (হেলমেট) ‘জেনারেলস্ কনফারেন্স’ এ মতবিনিময়কালে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

‘জেনারেলস্ কনফারেন্স’ সেনাবাহিনীর মেজর জেনারেল ও তদূর্ধ্ব পদবির কর্মকর্তাদের সম্মেলন।
বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরি এবং বাংলাদেশ সমরাস্ত্র কারখানার বিভিন্ন কার্যক্রম তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ সমরাস্ত্র কারখানায় বিদেশি প্রযুক্তির পাশাপাশি নিজস্ব উদ্ভাবনী শক্তিকে কাজে লাগিয়ে আর্মস এবং অ্যামুনিশন প্রস্তুত করা হচ্ছে। আধুনিক স্মল আর্মস অ্যামুনিশন প্ল্যান্ট স্থাপনের মাধ্যমে বছরে ৬৫ মিলিয়ন অ্যামুনিশন উৎপাদন করা সম্ভব হচ্ছে। এছাড়াও এ কারখানায় বছরে ১৪ হাজার রাইফেল এবং ৪ লাখ গ্রেনেডও উৎপাদিত হচ্ছে। ইতোমধ্যে ৬০ মিলিমিটার মর্টার, ৮২ মিলিমিটার মর্টার এবং মর্টার সেলের পরীক্ষামূলক উৎপাদন সফল হয়েছে।

‘মিসাইল অ্যাসেম্বলি প্ল্যান্ট, এক্সপ্লোসিভ টেস্টিং ল্যাব, বুলেট প্রুফ জ্যাকেট প্রস্তুতকরণ প্ল্যান্ট এবং এপিসি ম্যানুফ্যাকচারিং প্ল্যান্ট প্রস্তুতের কাজ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এছাড়া ১০৫ ও ১২২ মিলিমিটার হাউইটজার শেলের হাই এক্সপ্লোসিভ ফিলিং প্ল্যান্ট, গ্রেনেডের ফিউজ উৎপাদন প্ল্যান্ট, প্রোপেলেন্ট ম্যানুফ্যাকচারিং প্ল্যান্ট এবং সকল ধরণের টুলস্ উৎপাদন প্ল্যান্ট অতি শিগগিরই বাস্তবায়িত হবে জেনে আমি অত্যন্ত আনন্দিত।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে স্বনির্ভর করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরি এবং বাংলাদেশ সমরাস্ত্র কারখানার সাংগঠনিক কাঠামো পুনর্গঠন করা হয়েছে।

বিএমটিএফে সেনাবাহিনীর জন্য বিভিন্ন প্রজেক্টের পাশাপাশি দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের জন্যও ব্যাপক উন্নয়নমূলক প্রকল্প গ্রহণের প্রশংসা করেন প্রধানমন্ত্রী।

সকালে প্রধানমন্ত্রী সেনাবাহিনী সদর দফতরে এসে পৌঁছালে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে অভ্যর্থনা জানান সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল ইকবাল করিম ভূঁইয়া।

Print
763 মোট পাঠক সংখ্যা 1 আজকের পাঠক সংখ্যা

About Jessore Express

Close