মিয়ানমারের বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন আরাকান আর্মির কথিত শীর্ষ নেতা রেনিন সু

আরাকান আর্মির শীর্ষ নেতা গ্রেফতার

যশোর এক্সপ্রেস ডেস্ক: মিয়ানমারের বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন আরাকান আর্মির কথিত শীর্ষ নেতা রেনিন সু’কে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচ দিনের হেফাজতে নেওয়ার আদেশ দিয়েছে আদালত। গতকাল বুধবার বিকালে রাঙামাটির অতিরিক্ত বিচারিক হাকিম সাবরিনা আলী এ আদেশ দেন বলে জানান আদালত পুলিশের পরিদর্শক মোমিনুল ইসলাম। তার বিরুদ্ধে রাঙামাটির রাজস্থলী থানায় মুদ্রা আইনে একটি মামলাও দায়ের করা হয়েছে। পরিদর্শক মোমিনুল ইসলাম বলেন, বিকালে রেনিন সু’কে আদালতে হাজির করে রাজস্থলী থানায় সন্ত্রাস দমন আইনে দায়ের করা মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০ দিনের হেফাজতের (রিমান্ড) আবেদন করে পুলিশ। শুনানি শেষে আদালত পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে। রাজস্থলী থানার ওসি ওহিদ উল্লাহ সরকার জানান, গতকাল বুধবার মুদ্রা আইনে রেনিন সু’র বিরুদ্ধে রাজস্থলী থানায় একটি মামলা করেছে পুলিশ।
গত মঙ্গলবার তাকে গ্রেপ্তারের সময় ৪১ হাজার ১২০ টাকা, বিভিন্ন ব্যাংকের ছয়টি ক্রেডিট কার্ড, ন্যাদারল্যান্ডসের একটি পাসপোর্ট, একটি ল্যাপটপ ও একটি পরিচয়পত্র উদ্ধার করা হয় বলে জানান ওসি।
মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৩টার দিকে রাঙামাটির ইসলামপুর এলাকার একটি নির্মাণাধীন মসজিদ থেকে রেনিন সু’কে গ্রেপ্তার করা হয়।
রাঙামাটি বিজিবির মেজর শাব্বির আহমেদ, মেজর কামাল পাশা এবং ওসি ওহিদ উল্লাহ এই যৌথ অভিযানের নেতৃত্ব দেন।
চিকিৎসা শাস্ত্রের ডিগ্রিধারী রেনিন সু এক সময় নেদারল্যান্ডসে কাটিয়েছেন। গত কয়েক বছর ধরে তিনি রাজস্থলীতে বাড়ি বানিয়ে স্থানীয় এক মার্মা তরুণীকে বিয়ে করে রাঙামাটিতেই থাকছিলেন। সেখান থেকেই তিনি আরাকান আর্মির কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছিলেন বলে বাংলাদেশের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর ধারণা। গত ২৪ অগাস্ট বান্দরবানের থানচির সীমান্ত এলাকায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও বিজিবির একটি যৌথ টহল দলের ওপর আরাকান আর্মির হামলা ও গোলাগুলির পর রাজস্থলীতে রেনিন সু’র খোঁজ পায় পুলিশ। এর দুই দিন পর দুই তলা ওই বাড়িতে অভিযান চালায় পুলিশ ও বিজিবি। রেনিনকে পাওয়া না গেলেও সেখান থেকে তার সহযোগী অং ওয়েন রাখাইনকে আটক করা হয়। আরাকান আর্মির তিনটি পোশাক, ওই পোশাক তৈরির ৩০ গজ কাপড়, তিনটি ল্যাপটপ, তিনটি ক্যামেরা ও দুটি ঘোড়া পাওয়া যায় ওই বাড়িতে।
অং ওয়েন রাখাইন গতমাসে রাঙামাটির আদালতে দেওয়া জবানবন্দিতে স্বীকার করেন, তিনি আরাকান আর্মির একজন সদস্য। রেনিন সু’র বিষয়েও তথ্য দেন তিনি। ওই বাড়ির দুই কেয়ারটেকার মংচু অং মারমা ও চুইস অং মারমাও গ্রেপ্তার হয়ে বর্তমানে কারাগারে আছেন। ওই সময় রাজস্থলী থানায় সন্ত্রাস দমন আইনে একটি এবং অনুপ্রবেশের অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করেছিল পুলিশ।

Print
898 মোট পাঠক সংখ্যা 1 আজকের পাঠক সংখ্যা

About Jessore Express

Close