মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ মোশাররাফ হোসাইন ভূইঞা

কে হচ্ছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব?

যশোর এক্সপ্রেস ডেস্ক: সরকারের ২১তম মন্ত্রিপরিষদ সচিব কে হচ্ছেন তা নিয়ে চলছে ব্যাপক জল্পনা কল্পনা। এ পদে ভূমি মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব ড. মোজাম্মেল হক খান এবং জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের জেষ্ঠ সচিব ড. কামাল আব্দুল নাসের চৌধুরী দৌড়ে এগিয়ে আছেন বলে জানা গেছে। অবশ্য চূড়ান্ত নিয়োগ নির্ভর করছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওপর। তিনি যাকে পছন্দ করবেন তিনিই হবেন বাংলাদেশের ২১তম মন্ত্রিপরিষদ সচিব। আগামী ডিসেম্বরে বর্তমান মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ মোশাররাফ হোসাইন ভূইঞার অবসরে যাওয়ার কথা রয়েছে। এ পদে কাউকে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দেয়ার রীতি নেই বললেই চলে। কাজেই এ তিনি চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ পাচ্ছেন না এটা প্রায় নিশ্চিত। আর অন্য কেউও চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ পাবেন এমন সম্ভবনাও নেই।

এদিকে বিশ্বব্যাংকের বিকল্প নির্বাহী পরিচালক পদে বর্তমান মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ মোশাররাফ হোসাইন ভূইঞার নিয়োগ প্রায় চূড়ান্ত। আকস্মিক কিছু না ঘটলে তিনিই এ পদে নিয়োগ পাবেন। এমনকি আগামী মাসেই তিনি ওই পদে যোগদান করতে পারেন। অর্থাৎ বর্তমান বিশ্বব্যাংকের বিকল্প নির্বাহী পরিচালক সাবেক অর্থসচিব ড. মোহাম্মদ তারেকের স্থলাভিষিক্ত হবেন তিনি। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের বর্তমান মুখ্যসচিব আবুল কালাম আজাদ অবসরে যাচ্ছেন আগামী ৬ জানুয়ারি। চাকরির বয়সও তার শেষ। অন্য কোনো পদে তাকে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দেয়া হবে কি না তা এখনো জানা যায়নি। তবে তিনি সরকারের খুব ঘনিষ্ঠ। তারপরও উপরোক্ত কারণেই তাকে মন্ত্রিপরিষদ সচিব পদে নিয়োগ না দেয়ার সম্ভাবনাই বেশি।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব পদে নিয়োগ প্রক্রিয়ার যারা এগিয়ে আছেন তাদের মধ্যে অন্যতম হলেন : ভূমি মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম। তিনি মেধা তালিকায়ও এগিয়ে। প্রশাসনের জ্যেষ্ঠ এ কর্মকর্তার প্রতি প্রধানমন্ত্রীসহ সরকারের ওপর মহলের আস্থা রয়েছে। এদিকে সরকারের এ গুরুত্বপূর্ণ পদে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব ড. মোজাম্মেল হক খানের নামও শোনা যাচ্ছে। চাকরি জীবনে তিনি অনেক গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়ে সচিব হিসেবে নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে সরকারের আস্থা অর্জন করেছেন। সরকারের একটা অংশ তাকে এ পদে নির্ভরযোগ্য মনে করছে। সবশেষে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. কামাল আব্দুল নাসের চৌধুরী। তিনিও এ পদে নিয়োগ পাওয়ার জন্য সরকারের নীতিনির্ধারণী মহলে যোগাযোগ রক্ষা করে চলছেন।

চলতি বছরের মধ্যে সচিব ও সচিব পদমর্যাদার আরো ৮ জন অবসরে যাওয়ার কথা রয়েছে। তারা হলেন : অর্থ বিভাগের সিনিয়র সচিব মাহাবুব আহমেদ, শিক্ষাসচিব নজরুল ইসলাম খান, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ন্যস্ত আব্দুল মান্নান হাওলাদার এবং মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সমন্বয় ও সংস্কার সচিব মো. নজরুল ইসলাম। এছাড়া প্রাইভেটাইজেশন কমিশনের সদস্য পরীক্ষিত দত্ত চৌধুরী, পাবলিক সার্ভিস কমিশনের চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান আলী মোল্লা, পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য আরাস্তু খান, নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব শফিক আলম মেহেদী এ তালিকায় রয়েছেন। আগামী ১৯ অক্টোবর স্বাস্থ্য সচিব সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলামের অবসরে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সরকার একই পদে আগামী এক বছরের জন্য তাকে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দিয়েছে। বরাবরের মতো সরকার মুখে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগের বিপক্ষে কথা বললেও কার্যত চুক্তিভিত্তক নিয়োগ চলছেই। এর সর্বশেষ উদাহরণ স্বাস্থ্য সচিব সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলাম। কাজেই অবসরে যাওয়ার প্রস্ততি পর্যায়ের ওই ৮ জনের মধ্যে দু’একজন চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ পেতেই পারেন।

Print
509 মোট পাঠক সংখ্যা 1 আজকের পাঠক সংখ্যা

About Jessore Express

Close