বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া

৭ নভেম্বরের আগেই খালেদা জিয়া দেশে ফিরবেন

যশোর এক্সপ্রেস ডেস্ক: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া চিকিৎসা শেষে আগামী ৭ নভেম্বরের আগেই দেশে ফিরবেন। এছাড়া ‘জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি’ দিবস উপলক্ষে তিনি দলের কর্মসূচিতে অংশ নেবেন বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন দলটির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শনিবার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব তথ্য জানান। এর আগে ৭ নভেম্বর ‘জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি’ দিবস উপলক্ষে একটি যৌথসভা করেন মির্জা ফখরুল। সভাশেষে ফখরুল বলেন, ‘অনেক পত্রিকায় নিউজ এসেছে যে, বেগম জিয়া আর ফিরবেন না। কিন্তু দেশের বাইরে তার কোনো স্থাপনা নেই, প্রতিষ্ঠান নেই বা কোনো আত্মীয়ও নেই। কাজেই দেশের বাইরে থাকার কোনো প্রশ্নই আসে না। এসব করা হচ্ছে একটি চক্রান্তের অংশ হিসেবে।’

তিনি বলেন, ‘বেগম জিয়া চোখের চিকিৎসার জন্য যুক্তরাজ্যে গেছেন। চোখের চিকিৎসা নিয়ে এখন পায়ের চিকিৎসা নিচ্ছেন। চিকিৎসা নেয়ার পর ডাক্তার তাকে ছাড়পত্র দিলেই তিনি দেশে চলে আসবেন এবং খুব দ্রুতই আসবেন। আশা করি ৭ নভেম্বরের আগেই তিনি দেশে ফিরবেন।’শুক্রবার দিবাগত রাতে হোসনি দালানে শিয়া সম্প্রদায়ের ওপর বোমা হামলার বিষয়ে ফখরুল বলেন, ‘আমরা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই। একইসঙ্গে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে দায়ীদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার করে শাস্তির আওতায় আনার দাবি জানাই।’

তিনি বলেন, ‘দুই বিদেশি হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় সরকার তদন্তের আগেই বলে দিল, এটা বিএনপি-জামায়াত করেছে। বিএনপিকে বিভিন্ন হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িয়ে কোনো দলের সঙ্গে ব্র্যাকেটে একটি জঙ্গি সংগঠন হিসেবে প্রমাণ করতে চায় সরকার। কিন্তু স্পষ্টভাবে বলতে চাই, বিএনপি কোনো হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে বা জঙ্গি কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত নয়। বিএনপি একটি উদারপন্থী গণতান্ত্রিক দল। কোনো জঙ্গিবাদের সঙ্গে এ দলের সম্পৃক্ততা নেই। বিএনপি আইনের শাসন ও গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে। কেননা, এ দলটির মাধ্যমেই দেশে বহুদলীয় গণতন্ত্র, সংসদীয় গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা হয়েছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘বিএনপিকে সরকার নিশ্চিহ্ন করে দিতে চায়। জাতীয়তাবাদী শক্তিকে নির্মূল করে দিতেই বিভিন্ন হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে বিএনপিকে জড়াতে চায় সরকার। কিন্তু বিএনপিকে নিশ্চিহ্ন ও নির্মূল করা যাবে না। কেননা, বিএনপির সঙ্গে জনগণ রয়েছে।’
সাংবাদিকদের উদ্দেশে ফরখরুল বলেন, ‘অনুমাননির্ভর কোনো নিউজ করবেন না। প্রয়োজনে নেতৃবৃন্দের সঙ্গে কথা বলবেন। আমরা বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেব।’ সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, ‘নিরপেক্ষ তদন্ত হলেই বেরিয়ে আসবে বিদেশি হত্যাকাণ্ড বা শিয়াদের ওপর হামলাকারী কারা। এদের খুঁজে বের করতেই হবে। অন্যথায় দোষীরা ফ্রাংকেস্টাইন হয়ে যাবে।’

১০ দিনব্যাপী কর্মসূচি ঘোষণা:
সংবাদ সম্মেলনে ৭ নভেম্বর ‘জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি’ দিবস উপলক্ষে দেশব্যাপী ১০ দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেন দলটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন। তিনি বলেন, আগামী ৫ নভেম্বর থেকে ১৫ নভেম্বর পর্যন্ত দেশব্যাপী বিএনপির অঙ্গ সংগঠন রক্তদান কর্মসূচি, পোস্টার ও ক্রোড়পত্র প্রকাশ, আলোচনাসভাসহ নানা কর্মসূচি পালন করবে।

৭ নভেম্বর সকাল ৬ টায় কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে জাতীয় পতাকা ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে। ১০টায় জিয়ার সমাধিস্থলে খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও সূরা ফাতেহা পাঠ করা হবে। দলের কেন্দ্রীয় কমিটির পক্ষ থেকে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে আলোচনাসভার আয়োজন করা হবে ৮ নভেম্বর।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, যুব বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক খায়রুল কবীর খোকন, গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক সানাউল্লাহ মিয়া, সহ-মহিলা বিষয়ক সম্পাদক শিরিন সুলতানা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Print
792 মোট পাঠক সংখ্যা 1 আজকের পাঠক সংখ্যা

About Jessore Express

Close