আটদিনের রিমান্ডে তিনজন, স্বীকারোক্তি দেবেন একজন

ইতালির নাগরিক তাবেলা সিজারকে হত্যার ঘটনায় গ্রেফতারকৃত তিনজনের আটদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। গ্রেফতারকৃত অন্যজন ১৬৪ ধারায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেবেন বলে তার রিমান্ড চায়নি ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। রিমান্ড মঞ্জুর করা তিনজন হলেন- দুই সন্দেহভাজন হত্যাকারী ভাগ্নে রাসেল ওরফে কালা রাসেল ও চাকতি রাসেল এবং হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত মোটরসাইকেল মালিক শাখাওয়াত হোসেন শরিফ। সন্দেহভাজন অপর হত্যাকারী শ্যুটার রুবেলের রিমান্ড চাওয়া হয়নি।

সোমবার দুপুরে গ্রেফতারকৃত চারজনকে ঢাকার সিএমএম আদালতে হাজির করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) পরিদর্শক জিহাদ হোসেন। তদন্তের স্বার্থে তিনজনের প্রত্যেককে দশদিন করে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের আবেদন জানান তিনি। শুনানি শেষে প্রত্যেকের আটদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মাহবুবুর রহমানের আদালত।
রোববার দিনগত রাতে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ওই চারজনকে আটক করে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।
এ সময় তাবেলা হত্যায় ব্যবহৃত সাদা ও সোনালী রঙের এফজেডএস মডেলের মোটরসাইকেলটি উদ্ধার করা হয়।

চাকতি রাসেলকে গুলশান, ভাগ্নে রাসেলকে বাড্ডার সাঁতারকুল, রুবেল ও শাখাওয়াত হোসেন শরিফকে বাড্ডা থেকে গ্রেফতার করা হয়। হত্যায় ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটি শরিফের। এটি শরিফের মধ্যবাড্ডার বাসা থেকে উদ্ধার করা হয়। দুপুরে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনে ডিএমপি কমিশনার আসাদুজ্জামান মিয়া জানান, সরকারকে চাপে ফেলতে কথিত বড় ভাইয়ের নির্দেশে হত্যা করেন গ্রেফতারকৃত চাকতি রাসেল, ভাগ্নে রাসেল ও রুবেল।

কথিত বড় ভাই সম্পর্কে তিনি বলেন, ওই বড় ভাই একটি রাজনৈতিক দলের নেতা। বড় ভাই তাদের হত্যার জন্য ভাড়াটে খুনি হিসেবে ব্যবহার করেন। তিনি বলেন, বিদেশি নাগরিক হত্যা করতে পারলে সরকার চাপে পড়বে। আসাদুজ্জামান মিয়া বলেন, চাকতি রাসেল ও ভাগ্নে রাসেল ইয়াবাসহ বিভিন্ন নেশায় আসক্ত ও বিভিন্ন মামলায় সাজাপ্রাপ্ত আসামি। রুবেল ঠাণ্ডা মাথার খুনি। শাখাওয়াত হোসেন ইয়াবা ও অবৈধ অস্ত্র ব্যবসায়ী।

হত্যাকাণ্ড সম্পর্কে তিনি বলেন, অপারেশন আছে বলে ভাগ্নে রাসেল মোটরসাইকেলটি দিতে শরিফকে অনুরোধ জানান। ভাগ্নে রাসেলের সঙ্গে শরিফের সুসম্পর্ক থাকার কারণে আগেও শরিফ তাকে মোটরসাইকেল দিয়েছেন। সকালে মোটরসাইকেল দিলে বিকেলে ফেরত দিয়ে দিতেন। গত ২৮ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় রাজধানীর গুলশান-২ এর ৯০ নম্বর সড়কে জগিং করার সময় দুবৃর্ত্তদের গুলিতে নিহত হন ইতালিয়ান নাগরিক ও নেদারল্যান্ডভিত্তিক আন্তর্জাতিক সংস্থা আইসিসিওবিডির কর্মকর্তা তাবেলা সিজার।

Print
509 মোট পাঠক সংখ্যা 1 আজকের পাঠক সংখ্যা

About Jessore Express

Close