পেট্রাপোল বন্দরে একটি ট্রাক থেকে ৫’শ কোটি টাকার দশ কেজি কোকেন আটক

পশ্চিমবঙ্গের পেট্রাপোল বন্দরে একটি ট্রাক থেকে দশ কেজি কোকেন আটক করা হয়েছে। ট্রাকটি বাংলাদেশের বেনাপোল বন্দর দিয়ে ওপারের পেট্রাপোলে ঢুকেছিল বলে বিএসএফ জানিয়েছে। ভারতের মাদক নিয়ন্ত্রণ ব্যুরোর (এনসিবি) কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, আটক কোকোনের বাজার মূল্য ৬৫০ লাখ ডলার অর্থাৎ প্রায় ৫০০ কোটি টাকা।

বেনাপোল সীমান্তের অন্য প্রান্তে পেট্রাপোল বন্দরে বুধবার রাতে ট্রাকটি আটক করা হয়। পরে পরীা করে এর পণ্যের মধ্যে কোকেনের উপস্থিতি নিশ্চিত হন কর্মকর্তারা। বিএসএফ কর্মকর্তা এস পি তিওয়ারি বলেছেন, আমাদের কাছে খবর আসে যে, পেট্রাপোল দিয়ে মাদকের চালান আসছে। এজন্য আমরা বিভিন্ন গাড়িতে তল্লাশি চালাচ্ছিলাম।

“একটি ট্রাকে তল্লাশি চালিয়ে একটি ব্যাগে পাউডার জাতীয় সন্দেহজনক পণ্য পাওয়া যায়। তখন জওয়ানরা এটি জব্দ করে এবং এর চালককে আটক করে। আটকের পর ওই পাউডার এনসিবি কর্মকর্তাদের কাছে তুলে দেয় বিএসএফ। এনসিবি পরীার পর নিশ্চিত হয়, এই পাউডার কোকেন। ট্রাকটি চালাচ্ছিলেন সুমন শৈল নামে পশ্চিমবঙ্গের ২৪ পরগণা জেলার একজন। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এনসিবি কর্মকর্তারা বলছেন, বাংলাদেশ থেকে সড়ক পথে গাড়িতে পাচার করা কোকেন আটকের ঘটনা এটাই প্রথম।

এর আগে পশ্চিমবঙ্গে কোকেনের চালান ধরা পড়লেও তা এসেছিল উত্তর-পশ্চিমের রাজ্যগুলো থেকে। ওই কোকেন মিয়ানমার থেকে এসেছিল বলে মনে করা হয়। বাংলাদেশে সম্প্রতি চট্টগ্রাম বন্দরে তরল কোকেনের একটি চালান ধরা পড়ে। লাতিন আমেরিকা থেকে আসা ওই কোকেনের গন্তব্য ভারত ছিল বলে তদন্তে প্রকাশ পেয়েছিল।
যশোরের বেনাপোল সীমান্ত পথ দিয়ে ভারত থেকে বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্য আসে। তার মধ্যে ফেনসিডিল, মদ ও গাঁজা প্রধান। এদেশে ফেনসিডিল পাঠানোর জন্য সীমান্ত-লাগোয়া গ্রামগুলোতে বহু কারখানা গড়ে উঠেছে। ফেনসিডিল বাংলাদেশে পাচারের েেত্র ভারতীয় সীমান্তরী বাহিনী বা বিএসএফ তুলনামূলক নমনীয় বলে অভিযোগ রয়েছে। তবে বেনাপোল হয়ে ভারতে মাদক চোরাচালানের ঘটনা এর আগে শোনা যায়নি।

Print
838 মোট পাঠক সংখ্যা 1 আজকের পাঠক সংখ্যা

About Jessore Express

Close