মংলার পশুর নদীতে কয়লাবাহী কার্গো ডুবির ৪ দিনেও শুরু হয়নি উদ্ধার কাজ

যশোর এক্সপ্রেস ডেস্ক: বাগেরহাটের মংলার সুন্দরবনের পাশে পশুর চ্যানেলে ৫শ’ ১০ মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে ডুবে যাওয়ার চার দিনেও উদ্ধার হয়নি কার্গো এমভি জি আর রাজ। ফলে সুন্দরবনের জীব বৈচিত্র ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা করেছেন বন বিভাগ ও বিশেষজ্ঞরা।
এদিকে ডুবে যাওয়া কার্গোটি বেধে না রাখায় জোয়ার ভাটায় ¯্রােতে তোড়ে ক্রমস সুন্দরবনের দিকে সরে আসছে। এভাবে সরতে থাকলে অন্যান্য নৌযানের জন্য বিপজ্জনক অবস্থা সৃষ্টি হতে পারে। বর্তমানে পশুর চ্যানেলের জয়মনির ঘোল এলাকার ডুবে যাওয়া কার্গো এমভি জিয়া আর রাজের মাংকি পয়েন্টই (মাস্তুল) জোয়ারের সময়ে যাতে দেখার জন্য একটি ড্রাম বেধে চিহিৃত করে রাখা হয়েছে।
বাগেরহাট সরকারী পি সি কলেজের উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান শাহ আলম ফরাজী বলেন, কয়লাবাহী জাহাজ ডুবির কারনে সুন্দরবনে জীব বৈচিত্র ক্ষতির আশঙ্কা রয়েছে। কারন কয়লার কার্বন পানিতে মিশে কার্বন ডাই অক্সাইড ও এসিড তৈরি করে জলজ প্রানী ও উদ্ভিদের ক্ষতি করবে। সুন্দবনের বনজ সম্পদ উদ্ভিদের শ^াসমূল বৃদ্ধিতে বাধা সৃষ্টি করবে। এব্যপারে সকলকে সতর্ক থাকার আহবান জানান তিনি।
এদিকে পুর্ব সুন্দরবন বন বিভাগের ডিএফও মো. সাইদুল ইসলাম বলেন, আমরা ডুবন্ত জাহাজের কয়লা ও পানি সংগ্রহ করে পরীক্ষাগারে পঠিয়েছি। রিপোর্টের ভিত্তিতে কার্গোর মালিকের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থ্যা নিতে আদালতের মাধ্যমে আইনী লড়াই করবো। তবে দ্রুত কার্গোটি সরিয়ে নিতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি দাবি জানান।
বাগেরহাটের ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক শফিকুল ইসলাম বলেন, আমরা মালিক পক্ষের সাথে যোগাযোগ করেছি। আগামী ২/১ দিনের মধ্যে বেসরকারী একটি প্রতিষ্ঠান পশুর নদীতে নিমজ্জিত কার্গোটি উদ্ধার কাজ শুরু করবে।

Print
790 মোট পাঠক সংখ্যা 3 আজকের পাঠক সংখ্যা

About Jessore Express

Close