ঈশ্বরদীতে যুদ্ধাপরাধ মামলার সাক্ষীকে কুপিয়েছে সন্ত্রাসীরা

যশোর এক্সপ্রেস ডেস্ক: ঈশ্বরদীতে মানবতাবিরোধী অপরাধ মামলায় ট্রাইব্যুনালের সাক্ষী আব্দুর রহমান সরদারকে (৬৭) কুপিয়েছে সন্ত্রাসীরা। তাকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

রোববার সন্ধ্যা ৭টার দিকে ঈশ্বরদীর সাহাপুর মসজিদ মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। আব্দুর রহমান একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত জামায়াতের নায়েবে আমির আব্দুস সুবহানের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনালের অন্যতম সাক্ষী। মুক্তিযোদ্ধা ফজলুর রহমান ফান্টু জানান, খবর পেয়ে ঈশ্বরদীর অন্যান্য মুক্তিযোদ্ধা ও ট্রাইব্যুনালের কয়েকজন সাক্ষী হাসপাতালে গিয়ে তার দ্রুত চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন।

স্থানীয় সূত্র, পুলিশ ও মুক্তিযোদ্ধারা বাংলানিউজকে জানান, রোববার সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে সাহাপুর মসজিদ মোড়ের চায়ের দোকানে যাচ্ছিলেন আব্দুর রহমান। এ সময় বিশুসহ কয়েকজন সন্ত্রাসী ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাকে কোপাতে থাকে। এ সময় তার চিৎকারে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এলে সন্ত্রাসীরা দৌঁড়ে পালিয়ে যায়।

বিশুকে ছাড়া আর কাউকে তিনি চিনতে পারেননি বলে বাংলানিউজকে জানান আহত মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রহমান সরদার। ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিমান কুমার দাশ বলেন, ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ সাদেক আলী বিশ্বাসের সঙ্গে আব্দুর রহমানের জমি-জমা ও এলাকায় আধিপত্য নিয়ে বিরোধ রয়েছে। এ ঘটনা তারই জের। সাদেক আলী বিশ্বাস ও বিশুসহ কয়েকজনকে আসামি করে ঈশ্বরদী থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও জানান ওসি।

অভিযুক্ত আওয়ামী লীগ নেতা সাদেক আলী বিশ্বাস এ অভিযোগ অস্বীকার করে বাংলানিউজকে বলেন, আমি কয়েকদিন আগে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় আহত হয়ে বাড়িতে বিশ্রামে আছি। এ ঘটনার সঙ্গে আমার কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই।

Print
790 মোট পাঠক সংখ্যা 1 আজকের পাঠক সংখ্যা

About Jessore Express

Close