যশোরে বিরোধী নেতাকর্মীদের নামে ফের নাশকতা মামলা

যশোর এক্সপ্রেস ডেস্ক: যশোরে আটক বিএনপি ও জামায়াতের নয় নেতাকর্মীর কাছ থেকে পাঁচটি পেট্রোলবোমা, লিফলেট ও বই উদ্ধার দেখানো হয়েছে। এ ব্যাপারে ১৮ নেতাকর্মীকে আসামি করে মামলা করেছে পুলিশ। মামলায় রাজনৈতিক দল দুটির আটক নেতাকর্মীদের নাশকতাকারী হিসেবে দাবি করা হয়েছে।
আটক ব্যক্তিরা হলেন, ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার কাষ্টভাঙ্গা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান এবং বর্তমানে যশোরের চাঁচড়া চেকপোস্ট বিএডিসি বাইপাস সড়কের বাসিন্দা তবিবর রহমান, তফসীডাঙ্গা ঘোষপাড়ার সুলতান আহমেদ, সদর উপজেলার হালসা স্কুলপাড়ার মহিদুল ইসলাম, পশ্চিমপাড়ার শওকত আলী, ফতেপুর গ্রামের আমিনুর রহমান মিলন, পুলেরহাট এলাকার তামজিদুর রহমান তানিম, শংকরপুর বটতলা মসজিদ এলাকার মাহাবুর আলী ওরফে ডিম মাহাবুব, হাটবিলা গ্রামের শরিফুল ইসলাম ও অভয়নগরের প্রেমবাগ এলাকার শাহ আলম। নাশকতা মামলায় এদের সবাইকে আসামি করা হয়েছে।
এছাড়া এই মামলায় পলাতক আসামি দেখানো হয়েছে শহরের শংকরপুর বটতলা মসজিদের পাশের খোকন মিয়া, হাফিজ মাস্টার, সেলিম খান, জামায়াতে ইসলামী যশোর শহর শাখার আমির গোলাম রসুল, মাহিদিয়া গ্রামের আব্দুল মান্নান, হাফিজুর রহমান, তফসীডাঙ্গা গ্রামের গ্যারেজ রফিক, আমিনুর রহমান এবং ফারুক হোসেন।
কোতয়ালি থানার এসআই তরিকুল ইসলাম দায়েরকরা এজাহারে উল্লেখ করেছেন, ‘রোববার রাত ১১টার দিকে ধৃত আসামিরা তবিবর রহমানের চাঁচড়া চেকপোস্ট এলাকার বিএডিসি বাইপাস সড়কের বাড়ির সামনে অবস্থান করছিল। তারা যুদ্ধাপরাধের অভিযোগে অভিযুক্ত ফাঁসির আসামি সাকা চৌধুরী এবং আলী আহসান মুজাহিদের ফাঁসির রায় বানচাল করার জন্য বিভিন্ন স্থানে বোমা হামলা করে নাশকতার পরিকল্পনা করছিল। পুলিশ গোপন সূত্রে সংবাদ পেয়ে সেখানে হাজির হলে অন্যান্যরা পালিয়ে গেলেও নয়জনকে আটক করা হয়। তাদের কাছ থেকে পাঁচটি পেট্রোলবোমা, পাঁচটি বাঁশের লাঠি, জামায়াতে ইসলামীর দুইটি বই, শহর জামায়াতে ইসলামীর আমিরের পাঁচটি দাওয়াতপত্র এবং মতিউর রহমান নিজামীর লেখা একটি বই উদ্ধার করা হয়েছে।’
তবে গ্রেফতার নেতাকর্মী ও তাদের স্বজনরা বলছেন, পুলিশের বক্তব্য ডাহা মিথ্যে।

Print
1504 মোট পাঠক সংখ্যা 4 আজকের পাঠক সংখ্যা

About Jessore Express

Close