যশোরে যোগদানের চেষ্টাকালে ভুয়া সাব ইন্সপেক্টার আটক

যশোর এক্সপ্রেস ডেস্ক: পুলিশের পোশাক পরে যোগদান করতে এসে আটক হলেন হুসাইন সবুজ নামে এক যুবক। বৃহষ্পতিবার সকাল পুলিশ লাইনের প্রধান গেটের নিরাপত্তারক্ষীদের পেরিয়ে ওই যুবক চলে যান রিজার্ভ অফিসে। সেখানে গিয়ে নিজেকে সাব ইন্সপেক্টার হিসেবে পরিচয় দিয়ে যোগদানের কাগজপত্র জমা দেন। কাগজপত্র যাচাইয়ে ভুয়া প্রমাণিত হওয়ায় সাথে সাথে তাকে আটক করা হয়। কি উদ্দেশ্যে পুলিশের পোশাক পরে সে যোগদান করতে এসেছিল তা জানতে ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে জিজ্ঞাসাবাদ এবং গঠিত হয়েছে তদন্ত কমিটি। এমনকি একটি মামলাও হয়েছে।

তবে আটক সবুজের মা দাবি করেছেন তার ছেলে মানসিক ভারসম্যহীন। আটক সবুজ যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার পাল্লা গ্রামের আব্দুল আলিমের ছেলে। যশোরের পুলিশ সুপার আনিছুর রহমান জানান, বৃহষ্পতিবার সকাল ৯টার দিকে হুসাইন সবুজ নামে ওই যুবক সাব ইন্সপেক্টারের পোশাক পরিহিত অবস্থায় পুলিশ লাইনের রিজার্ভ অফিসে এসে যোগদানের চেষ্টা করে। তার কাগজপত্র যাচাই করে দেখা যায় মিথ্যা তথ্য দিয়ে সে যোগদানের চেষ্টা করছিল। যে কারণে তাকে আটক করা হয়। তার উদ্দেশ্য জানার জন্য জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এছাড়া তার নামে একটি মামলা হয়েছে।

বৃহষ্পতিবার দুপুরে পুলিশের মুখপাত্র সহকারী পুলিশ সুপার মীর শাফিন মাহমুদ জানান, সবুজকে জিজ্ঞাসাবাদ অব্যাহত আছে। তবে সে একেক সময় একেক রকম তথ্য দিচ্ছে। এদিকে আটক হুসাইন সবুজের মা বালিকা বেগম দাবি করেছেন তার ছেলে মানসিক ভারসম্যহীন। তিনি বলেন, সবুজ ঢাকায় পুলিশের সার্জেন্ট পদে নিয়োগের জন্য দাঁড়িয়েছিল। সবুজ তাদের জানায় সে নিয়োগ পরীক্ষায় পাশ করেছে। শীঘ্রই সে ট্রেনিংয়ে যাবে। কিন্তু তার আগেই সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয় সবুজ। এরপর থেকে সে মানসিক ভারসম্যহীন। তার চিকিৎসাও চলছে বলে জানান তিনি।

বালিকা বেগম আরো বলেন, সবুজ এরপর থেকে পুলিশে চাকরির জন্য বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে বেড়িয়েছে। বৃহষ্পতিবার ফোন করে জানায় তার চাকরি হয়েছে। এরপর পুলিশের মাধ্যমে জানতে পারেন তার ছেলে ভুয়া তথ্য দিয়ে যোগদান করতে গিয়ে আটক হয়েছে।

তবে পুলিশের একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে, সবুজ মানসিক ভারসম্যহীন হলে তার পক্ষে পুলিশের সাব ইন্সপেক্টরের র‌্যাঙ্ক ব্যাচসহ পোশাক যোগাড় করা সম্ভব হতো না। তাছাড়া সে পুলিশ লাইনে এসে একেবারে রিজার্ভ অফিসে গিয়ে পৌঁছেছে। বিষয়টি ছোট করে দেখার সুযোগ নেই। বড় ধরণের কোন নাশকতার পরিকল্পনা নিয়ে এমনটি করা হয়েছে কীনা তা খতিয়ে দেখার প্রয়োজন রয়েছে।

এ বিষয়ে পুলিশ সুপার আনিছুর রহমান বলেন, পুলিশের পূর্ণ পোশাক পরিধান করে কী উদ্দেশে সবুজ পুলিশ লাইনে এসেছিল, সে পোশাকগুলো কোথা থেকে পেলো তা জানার জন্য একটি তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। সে রিপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত কিছু বলা ঠিক হবে না।

Print
1058 মোট পাঠক সংখ্যা 3 আজকের পাঠক সংখ্যা

About Jessore Express

Close