পেঁপে চাষ করে পাল্টে গেল কৃষকের ভাগ্য

যশোর এক্সপ্রেস ডেস্ক: কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীতে পেঁপে চাষ করে কৃষক আবুল কালামের ভাগ্য বদলে গেছে। পরিকল্পনা-সাধনা আর পরিশ্রমের মাধ্যমে কাজ করলে জীবনে সফলতা অর্জন করা সম্ভব। আদর্শ কৃষক আবুল কালাম তারই উজ্জল দৃষ্টান্ত। কটিয়াদী উপজেলার বেকার যুবক আবুল কালাম, সে এখন উপজেলার মডেল কৃষক। জালালপুর ইউনিয়নের চরপুক্ষিয়া গ্রামে আবুল কালামের বাড়ি, ফাজিল পাস করার পর চাকরির পিছনে ছুটতে ছুটতে যখন ক্লান্ত তখন নিজের দক্ষতা ও উপজেলা কৃষি অফিসের পরামর্শ কাজে লাগিয়ে এক বছর ধরে পেঁপে চাষে অনেক টাকা আয় করেন তিনি।

এ মৌসুমে সাড়ে ৪ বিঘা জমিতে পেঁপে চাষ করে সব খরচ বাদ দিয়ে, প্রায় ৪ লক্ষ ৮৬ হাজার টাকা মুনাফা অর্জন করেন তিনি। নতুন করে দুই বিঘা জমিতে পেঁপে চাষ করছেন। ভাল উৎপাদন ও ফসলের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে, স্থানীয় উপজেলা কৃষি অফিসের সাথে যোগাযোগ স্থাপন করেন। তারই ফলশ্রুতিতে আবুল কালাম তার লব্দজ্ঞান ও কৌশল গুলো মাঠে প্রয়োগ করে ধীরে ধীরে অর্থনৈতিক ভাবে স্বাবলম্বী হয়ে উঠেন। কৃষক আবুল কালাম সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, বাগান জমিতে আরও এক বছর রাখা হবে, পরে বাগান ভেঙ্গে নতুন করে রোপন করা হবে।

বর্তমানে গাছ ও বাগান ভাল আছে আগামী ১ বৎসর বাগান হতে ভাল ফলন পাওার সম্ভাবনা আছে। আবুল কালামের সাফল্য দেখে এলাকার অন্যান্য চাষিগণ পেঁপে চাষে আগ্রহ দেখাচ্ছে। উপজেলা কৃষি অফিসার মোজাহার হোসেন আহাম্মদ সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, পেঁপে পুষ্টি গুনে ভরা সবজি ও ফল যা সারা বৎসর ফলে। কটিয়াদীর মাটি পেঁপে চাষের উপযোগি, বর্তমানে কটিয়াদী উপজেলায় প্রায় ১১০ বিঘা জমিতে পেঁপে বাগান আছে। সংশ্লিষ্ট উপ-সহকারি কৃষি অফিসার মোহাম্মদ নূর আলম গন্ধী বলেন, পরিচর্যা ও যত্ন সহকারে পেঁপে চাষ করলে চাষীগন লাভবান হবেন এবং তাদের জীবন যাএার মান উন্নত হবে বলে বিশ্বাস করি।

Print
845 মোট পাঠক সংখ্যা 1 আজকের পাঠক সংখ্যা

About Jessore Express

Close