সুন্দরবনে পাঁচটি আগ্নেয়াস্ত্র সহ গোলাবারুদ উদ্ধার, র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুক যুদ্ধে ছগির নিহত

যশোর এক্সপ্রেস ডেস্ক: পূর্ব সুন্দরবনে র‌্যাপিড এ্যাকশান ব্যাটেলিয়ন র‌্যাব-৬ ও ডিবি পুলিশের সঙ্গে বনদস্যুদের ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নয়ন বাহিনী প্রধান ছগির ভান্ডারি নিহত হয়েছে। আজ বুধবার সকালে সুন্দরবন পূর্ব বিভাগের শরণখোলা রেঞ্জের পানির ঘাট এলাকায় ওই ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনা ঘটে। বন্দুকযুদ্ধের এক পর্যায়ে দস্যুরা পিছু হটলে র‌্যাব সদস্যরা গুলিবিদ্ধ অবস্থায় বাহিনী প্রধান ছগির ভান্ডারিকে (৩৫) আটক করে। পরে সুন্দরবনের গভীর থেকে দস্যুদের ব্যবহৃত পাঁচটি আগ্নেয়াস্ত্র ও সাত রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয় এবং গুলিবিদ্ধ অবস্থায় বাহিনী প্রধান ছগিরকে শরণখোলা উপজেলা স্থাস্ব্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত ছগির বাগেরহাট জেলার মোরেলগঞ্জ উপজেলার পঞ্চকরন গ্রামের আনোয়ার ভান্ডারির ছেলে। ছগির ‘নয়ন’ নামে বাহিনী গঠন করে দীর্ঘদিন ধরে সুন্দরবনে দস্যুতা চালিয়ে আসছিল বলে র‌্যাব জানায়। র‌্যাব খুলনা-৬ এর লেঃ কমান্ডার মাহফুজুর রহমান ও এএসপি আবু-রাজ্জাক এবং বাগেরহাটের ডিবির সদস্য এস আই গাজী ইকবাল জানান, একদল বনদস্যু সুন্দরবনে জেলেদের মাছ ধরা নৌকায় ডাকাতির জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে র‌্যাবের কাছে খবর ছিল। গোয়েন্দা তথ্যের ওপর ভিত্তি করে র‌্যাব ও বাগেরহাট গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবির) একটি দল মঙ্গলবার রাতে পূর্ব সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জের মরাভোলা এলাকায় অভিযান শুরু করে। আজ বুধবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে যৌথ বহিনীর সদস্যরা সুন্দরবনের পানিরঘাট এলাকায় পৌছালে তাদেরকে লক্ষ্য করে বনের মধ্যে থেকে দস্যুরা গুলিবর্ষণ শুরু করে।

এ সময় র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। ১৫ মিনিট ধরে গুলাগুলির এক পর্যায়ে দস্যুরা পিছু হটলে র‌্যাব সদস্যরা গুলিবিদ্ধ অবস্থায় নয়ন বহিনী প্রধান ছগির ভান্ডারিকে আটক করে। র‌্যাব-৬ এর অধিনায়ক খোন্দকার রফিকুল ইসলাম জানান, গুলিবিদ্ধ অবস্থায় বাহিনী প্রধানকে শরণখোলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন এবং ছগির ভান্ডারি ‘নয়ন‘ নামে বনদস্যু বাহিনী গঠন করে দীর্ঘদিন ধরে সুন্দরবনে জেলে-বাওয়ালীদের ট্রলারে ডাকাতি এবং তাদের অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায় করে আসছিল। নিহত ছগিরের বিরুদ্ধে বাগেরহাটের বিভিন্ন থানায় দস্যুতার একাধিক মামলা রয়েছে।

র‌্যাব খুলন-৬ এর মিডিয়া অফিসার সিনিয়র এএসপি মোঃ হারুন অর রশিদ জানান, অভিযানে র‌্যাবের সঙ্গে বাগেরহাট ডিবি পুলিশের একটি দলও অংশ নেয়। বন্দুকযুদ্ধের পর ঘটনাস্থল তল্লাশী করে দুটি বিদেশি ও তিনটি দেশি তৈরি আগ্নেয়াস্ত্র এবং সাত রাউন্ড গুলি ও পাঁচ রাউন্ড গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত দস্যুর মৃতদেহ ও উদ্ধারকৃত অস্ত্র এবং গুলি শরণখোলা থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় র‌্যাব-৬ বাদী হয়ে শরণখোলা থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে।

Print
669 মোট পাঠক সংখ্যা 1 আজকের পাঠক সংখ্যা

About Jessore Express

Close