যশোরে কঠোর অনুশীলনে মামুনুলরা: বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ নিয়ে তুমুল উন্মাদনা

স্পোর্টস ডেস্ক: ব্যর্থতায় সাফ মিশন শেষ। এবার বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ টুর্নামেন্টে ভালো করার প্রত্যয়। ইতোমধ্যে যশোরে অবস্থান করছে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল। মঙ্গলবার পুলিশ লাইনে প্রথমবারের মতো ঘাম ঝড়ানো অনুশীলন করেছে মামুনুলরা। আগামী ৮ জানুয়ারি যশোরে পর্দা উঠছে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের চতুর্থ আসরের। আন্তর্জাতিক মানের এ টুর্নামেন্টের ৪টি খেলা অনুষ্ঠিত হবে যশোর শামস-উল-হুদা স্টেডিয়ামে। এ টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী ম্যাচে শ্রীলঙ্কার মুখোমুখি হবে স্বাগতিক বাংলাদেশ।

মঙ্গলবার দুপুর আড়াইটায় কোচ মারুফুল হকের নেতৃত্বে যশোর পুলিশ লাইন মাঠে অনুশীলন শুরু করে জাতীয় দল। প্রায় দু’ঘণ্টা নিবিড় অনুশীলন করে ফুটবলাররা। অনুশীলন শেষে বাংলাদেশ দলের কোচ মারুফুল হক বলেছেন, ‘উদ্বোধনী ম্যাচে পূর্ণ শক্তির বাংলাদেশ দল মাঠে নামবে। সাফের ব্যর্থতা ভুলে এই টুর্নামেন্টে ভাল ফুটবল দেশবাসীকে উপহার দিতে চায় খেলোয়াড়রা।’ আর খেলোয়াড়রাও এই ম্যাচের জন্য মুখিয়ে আছে বলে জানালেন অধিনায়ক মামুনুল। তিনি জানান, ফুটবলাররা তাদের যোগ্যতার প্রমাণ মাঠে দেয়ার জন্য কঠোর প্রস্তুতি নিচ্ছেন। উদ্বোধনী ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে পূর্ণ তিন পয়েন্ট অর্জন করে টুর্নামেন্ট শুরু করতে চান তারা।

এদিকে, যশোর শামস উল হুদা স্টেডিয়ামে এ টুর্নামেন্ট আয়োজনের জন্য প্রস্তুতি প্রায় শেষ পর্যায়ে। মাঠ ও গ্যালারি সংস্কার কাজ সম্পন্নের পথে। ম্যাচের আগের দিন দুপুরের মধ্যেই মাঠ বাফুফের কাছে হস্তান্তর করা হবে বলে জানিয়েছেন যশোর জেলা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন সভাপতি আসাদুজ্জামান মিঠু। যশোর জেলা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন জানিয়েছে, ৮ জানুয়ারি বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যকার প্রথম ম্যাচ ছাড়াও ৯ জানুয়ারি মালয়েশিয়া ও নেপাল, ১০ জানুয়ারি বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২৩ ও বাহরাইন এবং ১১ জানুয়ারি মালদ্বীপ ও কম্বোডিয়ার মধ্যকার ম্যাচ যশোর শামস উল হুদা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে। এ টুর্নামেন্টে প্রচুর দর্শক সাড়া পাওয়া যাবে বলে আশাবাদী সংশ্লিষ্টরা।

এর আগে সর্বশেষ ২০১৪ সালের ২৪ অক্টোবর যশোরে অনুষ্ঠিত হয়েছিল বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার মধ্যকার  ফুটবল ম্যাচ। সেই ম্যাচে দর্শকদের বিপুল সাড়ার কারণে এবার বঙ্গবন্ধু ফুটবল টুর্নামেন্টের ভেন্যু করা হয়েছে যশোরে।  বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার সেই ফুটবল ম্যাচের কথা তুলে ধরে যশোরের ক্রীড়ামোদি দর্শকরা এবারও আশায় বুক বেঁধেছেন ফুটবলের আন্তর্জাতিক মানের ক্রীড়াশৈলী উপভোগের জন্য। দর্শকদের পাশাপাশি যশোরের ক্রীড়া সংগঠকরাও এই টুর্নামেন্টকে ঘিরে আশায় বুক বাঁধছেন। তাদের প্রত্যাশা এই টুর্নামেন্ট ঘিরে ফুটবল উন্মাদনা তৈরি হবে, আর নতুন প্রজন্মের খেলোয়াড়রা উদ্বুদ্ধ হবে ফুটবলের প্রতি, সৃষ্টি হবে নতুন নতুন খেলোয়াড়। এমন প্রত্যাশার পাশাপাশি ম্যাচগুলো আয়োজনের জন্য প্রস্তুতি পুরোদমে এগিয়ে চলেছে বলে জানিয়েছেন যশোর জেলা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আসাদুজ্জামান মিঠু।

Print
585 মোট পাঠক সংখ্যা 5 আজকের পাঠক সংখ্যা

About admin

Close