এবার ফাঁসির আসামিকে ছেড়ে দিল চট্টগ্রামের পুলিশ

যশোর এক্সপ্রেস ডেস্ক: হত্যা মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিকে আটকের একদিন পর ছেড়ে দিয়েছে ফটিকছড়ি থানা পুলিশ। ফটিকছড়ির বীমা কর্মকর্তা নুর খালেক হত্যা মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আনোয়ার আশরাফ ওরফে আনোয়ার চৌধুরীকে (৪০) র‌্যাব গতকাল (রোববার) শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর থেকে আটক করেছিল।

র‌্যাবের আটকের একদিন পরই নামের অমিলের অজুহাতে তাকে ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ। এ ঘটনায় এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। র‌্যাব-১ এর দেয়া গোপন তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব- ৭ এর একটি টিম গতকাল (রোববার) সকাল ১০টায় শাহ আমানত বিমান বন্দর থেকে তাকে আটক করে। দীর্ঘদিন পলাতক থাকার পর কাতার থেকে ঢাকা হয়ে চট্টগ্রামে আসে তিনি।

তবে রোববার অভিযানে নেতৃত্ব দেয়া র‌্যাব চট্টগ্রাম অঞ্চলের উপ-পরিচালক স্কোয়াডন লিডার সাফায়েত জামিল ফাহিম সাংবাদিকদের বলেন, ‘র‌্যাব-১ এর তথ্যের ভিত্তিতে আনোয়ার চৌধুরীকে গতকাল সকাল সাড়ে ১০টার দিকে চট্টগ্রামে আসার পথে বিমান বন্দর থেকে আমরা আটক করি। তার বিরুদ্ধে তথ্য ছিল তিনি ফটিকছড়ির এক বীমা কর্মকর্তা হত্যা মামলার মৃত্যুুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি।’

তিনি বলে, ‘আটক করার সময় তিনি কোনো ধরণের প্রতিক্রিয়া দেখাননি। এমনকি তার বোডিং পাস, বিমানের টিকিট ও পাসপোর্টের নামেও অমিল পাওয়া গেছে। এরপর ভিকটিমের পরিবারও র‌্যাব অফিসে তাকে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত সেই আসামি বলে সনাক্ত করেছিলেন। এরপর আমরা রাতে তাকে স্থানীয় ফটিকছড়ি থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করি।’

পুলিশের ছেড়ে দেয়া প্রসঙ্গে র‌্যাব কর্মকর্তা ফাহিম বলেন, ‘আমার এতটুকু নিশ্চিত হওয়ার পরও কেন তাকে পুলিশ ছেড়ে দিয়েছে সেটি তারাই ভালো বলতে পারবে। তারা কিভাবে তার পরিচয়ে অমিল পেয়েছে সেটি আমি জানি না। এমনকি আমাদের কাছে খবর রয়েছে তিনি সরকার দলীয় অনেক বড় নেতার নিকটাত্মীয়। গতকালও অনেক নেতা তার জন্য ফোন করেছিল। এখন হয়তো অন্য কোনো কারণেও তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে নাকি, তথ্যে ভুল ছিল সেটি দেখতে হবে।’

এদিকে সোমবার দুপুরে ফটিকছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান ও গোল্ডেন লাইফের সাবেক এমডি তৌহিদুল আলম বাবুর উপস্থিতিতেই আনোয়ারকে ছেড়ে দেয়া হয়। স্থানীয় একাধিক সূত্র জানায়, আটক আনোয়ার সরকারি দলের প্রভাবশালী এক নেতা এবং ফটিকছড়ির পৌর মেয়রের নিকটাত্মীয় হওয়ায় তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

ফটিকছড়ি থানার ওসি মফিজ উদ্দিন জানান, ফটিকছড়ি থানার একটি হত্যা মামলায় ফাঁসির দ-প্রাপ্ত আসামি মনে করে র‌্যাব আনোয়ার আশরাফ নামে একজনকে গ্রেফতার করে আমাদের কাছে হস্তান্তর করেছিল। সোমবার ব্যাপক যাচাই-বাছাই শেষে এই ধৃত ব্যক্তির সঙ্গে প্রকৃত ফাঁসির দ-প্রাপ্ত আসামির নাম-ঠিকানার কোনো মিল না থাকায় তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

Print
373 মোট পাঠক সংখ্যা 1 আজকের পাঠক সংখ্যা

About admin

Close