মডেল থানায় শিশুদের রাখা হয় দাগী আসামিদের সঙ্গে!

এক্সপ্রেস ডেস্ক: যশোর কোতয়ালী মডেল থানা। এখানে সাধারণ অপরাধীদের রাখার জন্যে রয়েছে হাজতখানা, শিশুদের জন্যে রয়েছে ‘শিশু বিষয়ক ডেস্ক’। শিশু বিষয়ক ডেস্ক থাকলে কী হবে, প্রয়োগ নেই তার। শিশুদের এনে হাজতখানাতেই ঢুকিয়ে দেওয়া হচ্ছে দাগী আসামিদের সঙ্গে।
রোববার গভীররাতে যশোরের নরেন্দ্রপুর পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই আব্দুর রহিম আনারুল (১৫) ও হাসিব (১০) নামে দু’শিশুকে ধরে এনে থানাহাজতে রেখে দেন।
এরা দু’জন রোববার দুপুরে সদরের পদ্মবিলা বাজারে জনৈক নাসিরের দোকান থেকে বাটখারা চুরি করেছে মর্মে পাকড়াও হয়। বাজারের দোকানিরা তাদের মারধর করে স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়িতে সোপর্দ করে। পুলিশ তাদের সারাদিন সেখানে আটকে রেখে রাতে থানায় নিয়ে আসে।
তবে, আটক দু’শিশু জানায়- চুরির সঙ্গে তারা জড়িত নয়। রিপন নামে তাদের আরেক সহযোগী চুরি করে পালিয়ে যায়।
এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে কোতয়ালী থানার ওসি ইলিয়াস হোসেন জানান, শিশুদের অভিভাবকদের খবর দেওয়া হচ্ছে। এলে তাদের জিম্মায় ছেড়ে দেওয়া হবে।
থানাহাজতে কেন রাখা হয়েছে- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘ওখানে তো রাখার কথা না। আমি দেখছি।’ আটক আনারুল যশোর শহরের বেজপাড়া আনসার ক্যাম্প এলাকার মিজানুর রহমানের ছেলে এবং হাসিব শহরতলী ধর্মতলা এলাকার মোহাম্মদ লিটনের ছেলে।

Print
664 মোট পাঠক সংখ্যা 3 আজকের পাঠক সংখ্যা

About Jessore Express

Close