ফরিদপুর থেকে অপহৃত ৫ শ্রমিক যশোরের ধর্মতলা থেকে উদ্ধার : আটক ১

যশোর এক্সপ্রেস ডেস্ক: ফরিদপুর থেকে অপহৃত ৫ শ্রমিককে যশোর শহরতীলল ধর্মতলা এলাকা থেকে উদ্ধার করে পুলিশ সোপর্দ করেছে জনতা। একইসাথে ঘটনাস্থল থেকে রাব্বী নামে এক অপহরণকারীকে আটক করা হয়েছে। অপহৃতরা জানান, গত ১২ জানুয়ারি রংপুর বদরগঞ্জ উপজেলার মহিরিপাড়া গ্রামের হোসেন আলীর ছেলে শফিকুল ইসলাম (২৮), দরাজউদ্দিন গ্রামের মোস্তফা (২৬), কালুপাড়া গ্রামের মৃত খলিল উদ্দিনের ছেলে দুলু মিয়া (৪২), নীলফামরী সদর উপজেলার টেপুরপাড়া গ্রামের ছায়েম আলীর ছেলে মিজানুর রহমান (২৫), পঞ্জগড় সদর উপজেলার হুরমুজের ছেলে আয়নাল হক (৩০) ফরিদপুর শহরে কাজের সন্ধানে আসেন। ওই দিন যশোর কাজীপাড়ার শিবুর ছেলে বাবু, বড়বাজারের রবিউল, গাড়িখানার মোসলেম উদ্দিনের ছেলে তারেক, ঘোপ নওয়াপাড়া রোডের মনোয়ার হোসেনের ছেলে বিল্পব হোসেন রাবিবসহ রাসেল, রিপন নামে মোট ১০/১২জনের একটি চক্র তাদের অপহরণ করে যশোরে নিয়ে আসে।

তারা বলেন, মাঠে ধান রোপনের নাম করে তাদের সাথে চুক্তি করে যশোরে নিয়ে আসে অপহরনকারী চক্রটি। পরে তাদের একটি আবাসিক হোটেলে ২দিন ও পরে একটি বাড়িতে রেখে পরিবারের কাছে ৫ লাখ টাকা মুক্তিপন দাবি করে। মুক্তিপনের জন্য ওই পাঁচ জনের পরিবার খন্ড খন্ড ভাবে ৪৫ হাজার টাকা বিকাশের মাধ্যমে পাঠায়। কিন্তু তাদের মুক্তি না দিয়ে গতকাল সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় ধর্মতলা দিয়ে পাশের কোন গ্রামে রাখার জন্য ইজিবাইকে করে নিয়ে যাচ্ছিল ওই চক্রের সদস্যরা। এ সময় ইজিবাইক চালক কদমতলা মোড়ে যাত্রা বিরতি করলে তারা বাঁচাও বলে চিৎকার করে। পরে স্থানীয়রা ছুটে আসে এ সময় অপহৃতদের উদ্ধার করে এবং অপহরণকারী রাব্বীকে আটক করে। এ সময় তারেক নামে আর একজন পালিয়ে যায়। সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহরুল ইসলামসহ স্থানীয়রা থানায় খবর দিয়ে তাদের পুলিশে সোপর্দ করা হয়।

এদিকে অপহরনকারী রাব্বী জানায়, অপহরণের সাথে তারা ১০/১২জন জড়িত। এর মধ্যে যশোরের বাইরের লোকজনও রয়েছে। সে আরো জানায়, তার দায়িত্ব ছিল ঘটনাস্থলে খাবার পৌছে দেয়া। খাবার দিতে গিয়ে সে ধরা পড়ে। যশোর কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত ওসি শেখ গণি মিয়া বলেন, একটি টিম অপহৃতদের উদ্ধার ও একজনকে আটক করে থানায় এনেছে। বাইরে থাকায় তিনি এ বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানাতে পারেননি।
Print
1689 মোট পাঠক সংখ্যা 3 আজকের পাঠক সংখ্যা

About admin

Close