যশোরে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ উৎপাদন যন্ত্রের উদ্ভাবক নিয়ে ধ্রুমজাল

যশোর এক্সপ্রেস ডেস্ক: যশোরে দুই দিন ব্যাপী ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলায় প্রদর্শিত জ্বালানি তেল ছাড়াই নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ উৎপাদন যন্ত্রের উদ্ভাবক নিয়ে ধ্রুমজাল সৃষ্টি হয়েছে। জেলা প্রশাসক চত্বরে আয়োজিত এই মেলায় মিজানুর রহমান নামের এক ব্যক্তি জ্বালানি ছাড়াই নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ উৎপাদনের একটি যন্ত্র প্রদর্শন করেন। যন্ত্রটি প্রদর্শনের পরপরই মেলায় আগত দর্শনার্থীদের মধ্যে এটিকে ঘিরে নিয়ে আগ্রহ তৈরি হয়।

এদিকে মেলার শেষদিন রাশদা আহম্মেদ নিলয় নামের এক বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র শনিবার যশোর প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে দাবি করেন, জ্বালানি ছাড়াই বিদ্যুৎ উৎপাদনের যন্ত্র তৈরির আইডিয়া তার ছিল। এমনকি যন্ত্রটি বানানোর ফর্মূলাও তার। মিজানুর তার আইডিয়া চুরি করে যন্ত্রের উদ্ভাবক হয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলনে নিলয় লিখিত বক্তব্যে জানান, যশোরের ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলায় প্রদর্শনী চলাকালীন সময়ে জ্বালানি তেল ছাড়াই নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ উৎপাদন যন্ত্রটি তিনি আবিষ্কার করেছেন। অথচ শার্শার উপজেলা গেটের মোটর মেকানিক মিজানুর রহমান সেটার আবিষ্কারক বলে দাবি করেছেন।

মিজানের বিরুদ্ধে আইডিয়া চুরির অভিযোগ করে তিনি বলেন, আমি ঢাকার এশিয়া প্যাসিফিক বিশ্ববিদ্যালয়ের তড়িৎ ও প্রকৌশল বিভাগের ছাত্র। আমার উদ্ভাবনী যন্ত্রটি তৈরি ও গবেষণা চলাকালীন সময়ে মিজানুর রহমান প্রযুক্তিটি পর্যবেক্ষণ করেন। পরে ফর্মূলা ও পরিকল্পনা সুকৌশলে জেনে নিয়ে করে তিনি যন্ত্রটি তৈরি করেন এবং মেলায় প্রদর্শন করেন।

এ বিষয়টি তিনি জেলা প্রশাসক (সার্বিক) সাবিনা ইয়াসমিনকে লিখিতভাবে জানিয়েছেন। একইসাথে তিনি জালিয়াতির ঘটনায় যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান।  তবে অভিযোগ ভিত্তিহীন দাবি করে অভিযুক্ত মিজানুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, আমি এই আবিষ্কারের কারণে জাতীয় পুরস্কার পেয়েছি। এই যন্ত্রটি ছাড়াও আমি জ্বালানি সাশ্রয়ী গাড়ি, ডিজিটাল অটো ফায়ার ফায়ার এক্সটিংগুইশার, জমিতে সেচ দেওয়া অটো সুইচ মেশিনসহ বিভিন্ন যন্ত্র আবিষ্কার করেছি। ঢাকা ও খুলনার বিভিন্ন মেলায় সেগুলো প্রদর্শিত হয়েছে। কিন্তু অসৎ উদ্দেশ্যে এখন আমার নামে বদনাম করা হচ্ছে। তিনি অভিযোগের সত্যতা যাচাইয়ের জন্য প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ করেছেন।

Print
654 মোট পাঠক সংখ্যা 1 আজকের পাঠক সংখ্যা

About admin

Close