লেবাননে মমতাজের কনসার্ট বর্জন করলেন প্রবাসীরা

এক্সপ্রেস ডেস্ক: রোববার লেবাননে একটি কনসার্টে আসেন বাংলাদেশের জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পী মমতাজ বেগম। লেবানন আওয়ামী লীগের একাংশের সভাপতি কাশেম সাদীর ভাগীনা সজিব হত্যার প্রতিবাদে প্রবাসীরা মমতাজের এই কনসার্টকে বর্জন করেন।

উল্লেখ্য, ৯ মে ২০১৫ লেবানন এমনি একটি কনসার্টে গান গাইতে লেবানন এসেছিলেন মমতাজ বেগম এমপি। লেবানন বাংলাদেশি হাজার হাজার প্রবাসীরা ২০-৪০ ডলারে টিকেট কিনে আসতেন এই কনসার্টে। আগের গানের আসরে দশর্কদের উপচে পরা ভিড় ছিল। মমতাজ বলে কথা।

৯ মে রোরবারের অনুষ্ঠানের শেষের দিকে আনুমানিক রাত ৮টার দিকে সজিব নামে একটি ছেলেকে বাংলাদেশি কিছু বিপদগামী প্রবাসী তুলে নিয়ে গিয়ে রাত ৯টার দিকে বৈরুতের আইন আল-রুম্মানী এলাকায় গুলি করে পালিয়ে যায়।

সজিব লেবানন তৎকালীন আওয়ামী লীগের একাংশের সভাপতি কাশেম সাদীর ভাগীনা, সজিব তার মায়ের একমাত্র ছেলে ছিল। আর যিনি খুনি, আজও যিনি পলাতক সেই পিয়াস লুৎফর রহমান শ্যামলের  আত্মীয়। লুৎফর রহমান শ্যামল তৎকালীন আ’লীগের একাংশের সভাপতি এবং সেই কনসার্টের সহযোগী ছিলেন। তখন খুনটি রাজনৈতিক পক্ষ পাতিত্বে চলে যায়।

সেই সময় খুনের অভিযোগে সভাপতি শ্যামল গ্রেফতার হয়েছিলেন, দলীয় কোন্দলে কাশেম সাদীকে দাবিয়ে রাখতে পিয়াসকে দিয়ে সজিবকে খুন করানোর অভিযোগ উঠেছিল তার বিরুদ্ধে। আর তাকে নির্দোষ দাবি করে সাংবাদিক সম্মেলন করেছিলেন শিল্পী মমতাজ বেগম এমপি। এবং সেই সাংবাদিক সম্মেলনে পরবর্তিতে আরেকটি কনসার্ট করার কথা বলেন মমতাজ বেগম। টিকিট ২০-৪০ ডলার নির্ধারণ থাকলেও তা ১০ ডলারের ঘোষণা দিয়েছিলেন তিনি।

লেবানন প্রবাসীরা এমন একটি খুনের ঘটনায় মুয্যমান ছিলেন, বেশকিছু কমিউনিটি নেতৃব‍ৃন্দ মমতাজ বেগমকে অনুরোধ করেছিলেন পরবর্তী শো না করতে। সেদিন কারো কথাই তিনি শুনেননি।

একটি সূত্রে জানা যায়, সে বছরে তার পরের কনসার্টে দেড়শ দর্শকও না হওয়ায় লোকসান গুনতে হয়েছিল পাম্মা প্রোডাকশনকে আর সেই লোকশান পুশিয়ে দিতে এবার মমতাজ নিজেই লেবানন আসতে রাজি হয়েছেন। আর এবারও বাংলাদেশি প্রবাসীরা তাকে আর তার গানকে প্রত্যাখান করল।

Print
555 মোট পাঠক সংখ্যা 3 আজকের পাঠক সংখ্যা

About Jessore Express

Close