এবারের অস্কারে ৭ মজার বিষয়…

 বিনোদন ডেস্ক: অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ড বা অস্কার চলচ্চিত্রশিল্পের জন্য বিশেষায়িত একটি বার্ষিক পুরস্কার। ১৯২৯ সাল থেকে চলচ্চিত্রসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে দেওয়া হয় এই পুরস্কার। চলচ্চিত্র জগতের সবচেয়ে সম্মানজনক এই পুরস্কারের প্রতীক্ষা থাকে দুনিয়াজোড়া চলচ্চিত্র নির্মাতা, অভিনেতা থেকে শুরু করে দর্শক সমালোচক সবার। এই বছর বসছে অস্কারের ৮৮তম আসর। সম্প্রতি অস্কার কর্তৃপক্ষ এই বছরের মনোনয়ন পাওয়া ছবিগুলোর সংক্ষিপ্ত তালিকা প্রকাশ করে। আর সেই তালিকার বিস্ময়কর আর মজার সাতটি বিষয় নিয়ে থাকছে এই আয়োজনে।

১. ৮৮তম অস্কারে আটটি ছবি
বিগত বছরের মতো এবারও অস্কারের বেস্ট পিকচার অ্যাওয়ার্ডের জন্য লড়ছে আটটি ছবি। সৌন্দর্য আর নিষ্ঠুরতার মহাকাব্য ‘দ্য রেভেন্যান্ট’ একাই ১২টি মনোনয়ন নিয়ে অবস্থান করছে তালিকার শীর্ষে। ‘দ্য বিগ শর্ট’ আর ‘স্পটলাইট’-এর মতো বাস্তব জীবনঘনিষ্ঠ কাহিনীর ছবিগুলোর সঙ্গে প্রতিযোগিতা চলছে অ্যাকশননির্ভর ‘ম্যাড ম্যাক্স : ফিউরি রোড’ এবং সায়েন্সফিকশন থ্রিলার ‘দ্য মার্শিয়ান’-এর। এ ছাড়া তালিকায় রয়েছে ‘ব্রুকলিন’ আর ‘ব্রিজ অব স্পাইজ’। লেনি আব্রাহামসনের কিডন্যাপ ড্রামা ‘রুম’ও জায়গা করে নিয়েছে তালিকায়, যার প্রধান অভিনেত্রী ব্রি লারসন আবার সেরা অভিনেত্রী হিসেবে পুরস্কারের দৌড়ে এগিয়ে অনেকের চেয়েই।

২. আরেকটি ‘সাদাদের অস্কার’
গতবারের অস্কারের মতো এবারও অস্কারে নেই ‘কালো’দের কোনো স্বীকৃতি কিংবা কাজ। ইদ্রিস এলবার বহুল আলোচিত ‘বিস্টস অব নো ন্যাশন’ মনোনয়নের সম্ভাবনা জাগিয়েও পায়নি, ‘বেস্ট অরিজিনাল স্ত্রিনপ্লে’ ছাড়া আর কোথাও নেই এনডব্লিউর বায়োপিক ‘স্ট্রেইট আউটা কম্পটন’। একমাত্র ২৮ ফেব্রুয়ারির অস্কার অনুষ্ঠানের সঞ্চালক ক্রিস রক ছাড়া এই অস্কারের প্রায় বাকি সবই সাদাদের দখলে।

৩. লিওনার্দো ডি ক্যাপ্রিও
২৫ বছরের চলচ্চিত্র ক্যারিয়ারে ডি’ক্যাপ্রিওর জন্য সোনার হরিণ হয়ে থাকা ‘অস্কার’ এবার কি ধরা দেবে? প্রশ্ন সবার। তবে এই বছর ডি’ক্যাপ্রিও ভক্তদের আশাটা অন্যবারের চেয়ে একটু বেশিই প্রবল। কারণ ‘রেভেন্যান্ট’-এ হিউ গ্লাস-এর চরিত্রে অভিনয়ের জন্য ডি’ক্যাপ্রিও মনোনয়ন পেয়েছেন চারটি ক্যাটাগরিতে (আরেকটি দুই বছর আগের উল্ফ অব ওয়াল স্ট্রিট-এর প্রযোজনার জন্য)।

অস্কার দর্শক আর বোদ্ধারা মনে করছেন, এবারই সুযোগ ডি’ক্যাপ্রিওর। কারণ অস্কারের ইতিহাস ঘাঁটলে দেখা যায়, শিল্পের প্রয়োজনে যেসব অভিনেতাকে ভুগতে হয়েছে বেশি, তারাই তত এগিয়ে ছিলেন পুরস্কারের দৌড়ে। যেমনটি দেখা গিয়েছিল গত বছরও। ‘স্টিফেন হকিং’ চরিত্রে অভিনয় করতে গিয়ে নিজের শরীরের সঙ্গে রীতিমতো যুদ্ধ করেছিলেন এডি রেডমাইন (এই বছর যিনি মনোনয়ন পেয়েছেন ‘দ্য ড্যানিশ গার্ল’ এর জন্য) যার স্বীকৃতি পেয়েছিলেন সেরা অভিনেতা হিসেবে অস্কার জয়ের মাধ্যমে।

সে বিবেচনায়, পশম সংগ্রাহকের ভূমিকায় অভিনয় করতে গিয়ে অনেক বেশিই খেটেছেন ডি’ক্যাপ্রিও। প্রতিকূল আবহাওয়ার সঙ্গে মানিয়ে নেওয়া, মৃত ঘোড়ার দেহের ভেতর রাত কাটানো ছাড়াও শুধুমাত্র চরিত্রের প্রয়োজনে কাঁচা লিভার পর্যন্ত খেয়েছেন এই অভিনেতা।

৪. ব্রিটিশ অভিনেতা-অভিনেত্রীদের জয়জয়কার
বাফটায় ব্যাপকভাবে নিন্দিত হওয়ার পর এবার বৈবাহিক নাটকীয়তার ছবি ‘৪৫ ইয়ার্স’-এ অভিনয়ের জন্য শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী হিসেবে নিজের সর্বপ্রথম অস্কার মনোনয়ন উদযাপন করছেন ব্রিটিশ অভিনেত্রী শার্লট র‍্যাম্পলিং। ‘দ্য রিডার’-এর দিয়ে অস্কার জেতা কেট উইন্সলেট সপ্তমবারের মতো অস্কার মনোনয়ন পেলেন ‘স্টিভ জবস’ ছবিতে জনা হফম্যান নামক পার্শ্বচরিত্রে অভিনয়ের জন্য।

এ ছাড়া ব্রিটিশদের আরেক আশাজাগানিয়া ব্রিটিশ অভিনেতা ক্রিশ্চিয়ান বেল মনোনয়ন পেলেন ‘দ্য বিগ শর্ট’-এ বেস্ট সাপোর্টিং অ্যাক্টর হিসেবে। শীতল যুদ্ধের থ্রিলার ‘ব্রিজ অব স্পাইজ’-এর জন্য মার্ক রাইল্যান্স আর ‘দ্য রেভেন্যান্ট’-এর জন্য মনোনয়ন পেয়েছেন টম হার্ডি। সব মিলিয়ে সম্ভাবনাময় অনেকেই আছেন ব্রিটিশ, যার আধিক্য সচরাচর দেখা যায় না।

৫. সেরা পরিচালকের তালিকা থেকে স্কট আর স্পিলবার্গের বিদায়
এবারের অস্কারের বেস্ট-ডিরেক্টর’ ক্যাটাগরিতে ছিল বিরাট বিস্ময়, কারণ এই তালিকায় ‘দ্য মার্শিয়ান’-এর পরিচালক রিডলি স্কট আর ‘ব্রিজ অব স্পাইজ’ এর পরিচালক স্টিভেন স্পিলবার্গের নাম নেই! যদিও এই দুই প্রথিতযশা পরিচালকের ছবি দুটো বেস্ট পিকচার তালিকায় থেকে এখনো প্রতিনিধিত্ব করছে তাদের।

একমাত্র ‘দ্য রেভেন্যান্ট’-এর পরিচালক আলেহান্দ্রো গনজালভেজ ইনারিতু ছাড়া এই তালিকার অন্য সব পরিচালকই এই ক্যাটাগরির নতুন মুখ। তালিকার অন্য পরিচালকরা হলেন ‘দ্য রুমস’-এর জন্য লেনি আব্রাহামসন, ‘ম্যাড ম্যাক্স : ফিউরি রোড’-এর জন্য জর্জ মিলার, ‘স্পট লাইট’-এর জন্য টম ম্যাকার্থি এবং ‘দ্য বিগ শর্ট’-এর জন্য অ্যাডাম ম্যাকাই।

৬. এবার কি পারবেন রজার ডিকিন্স?
জীবন্ত যেকোনো মানুষের মধ্যে সিনেমাটোগ্রাফির জন্য সর্বোচ্চ ১৩ বার অস্কার মনোনয়ন পেয়েছেন ডিকিন্স। কিন্তু বিধি বাম, জয়মাল্য গলায় ওঠেনি একবারও! এই মৌসুমে, ব্রিটিশ এই সিনেমাটোগ্রাফার অস্কার তালিকাভুক্ত হন ড্রাগ কার্টেল থ্রিলার ‘সিকারিও’-এর জন্য। কিন্তু এই বছরটি বোধহয় অন্যান্য বছরের তুলনায় একটু কঠিনই হবে তাঁর জন্য, কারণ এবার একই তালিকায় থেকে লড়াই করবেন ‘দ্য রেভেন্যান্ট’-এর ইমান্যুয়েল ল্যুবেযকি, যিনি কিনা অপেক্ষা করছেন একটি অস্কার হ্যাটট্রিকের! গত দুই মৌসুমেই ‘বার্ডমান’ আর ‘গ্র্যাভিটি’র জন্য অস্কার জিতেছিলেন এই সিনেমাটোগ্রাফার।

৭. একই চরিত্রে অভিনয়ের জন্য দ্বিতীয়বার অস্কারে
সিলভেস্টার স্ট্যালোন সেরা অভিনেতা ক্যাটাগরিতে মনোনয়ন পেয়েছেন ‘ক্রিড’-এ রকি বালবোয়া চরিত্রে অভিনয়ের জন্য। মজার ব্যাপার হলো প্রায় ৪০ বছর আগে ১৯৭৭ সালে অরিজিনাল রকি চরিত্রের জন্য একই ক্যাটাগরিতে মনোনয়ন পান এই অভিনেতা। এই বছরই ক্যারিয়ারের প্রথম গোল্ডেন গ্লোব জিতলেন সিলভেস্টার স্ট্যালোন। পরপর এ রকম দুটি সাফল্য তাও আবার এত দীর্ঘ বিরতির পর! সব দেখে মনে হচ্ছে স্ট্যালোনই হতে যাচ্ছেন এই বছরের ‘কামব্যাক কিং’।

উল্লেখ্য, সকল জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটবে এই ২৮ ফেব্রুয়ারির অস্কার মঞ্চেই, ভক্ত-দর্শকদের মিটবে কৌতূহল আর বিজয়ের হাসি হাসবেন কলাকৌশলীরা।

Print
1487 মোট পাঠক সংখ্যা 1 আজকের পাঠক সংখ্যা

About admin

Close