অবশেষে পরিচয় মিলেছে অজ্ঞাত মহিলা ও শিশুর

যশোর এক্সপ্রেস ডেস্ক: দুর্ঘটনায় আহত হয়ে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ঠাঁই পাওয়া অচেতন অজ্ঞাত মহিলার পরিচয় মিলেছে। ওই মহিলার সাথে থাকা ২ বছরের সন্তানটি আশ্রয় পেয়েছে নিজের পরিবার পরিজনের কাছে। গ্রামের কাগজে প্রকাশিত সংবাদ ও ছবি দেখে গতকাল সকালে পরিবারের লোকজন হাসপাতালে এসে তাদের সেবাযত্নের দায়িত্ব নিয়েছেন।

যশোর ডিসির বাংলোর সামনে দুর্ঘটনায় আহত ওই মহিলার নাম জাহানারা বেগম (৩৫)। তিনি সদর উপজেলার নারাঙ্গালী গ্রামের মতিয়ার রহমানের স্ত্রী। ২৪ জানুয়ারি বেলা ১১টার দিকে ২ বছর বয়সী সন্তান রমজান আলীকে নিয়ে তিনি শহরের বেজপাড়ায় আত্মীয় বাড়ি যাওয়ার জন্যে বের হন। ধর্মতলা থেকে রিক্সাযোগে তিনি শহরের দিকে আসছিলেন। পথিমধ্যে ডিসির বাংলোর সামনে আসলে ইজিবাইকের ধাক্কায় মাথায় প্রচন্ড আঘাত পান জাহানারা। তার কোলে থাকা সন্তান রমজান আলী ছিটকে পড়ে দুরে। রমজান অক্ষত থাকলেও মাথায় আঘাত লাগায় অচেতন হয়ে রাস্তার পাশে পড়ে থাকেন জাহানারা। পথচারী শরিফুল ইসলাম নামে এক ব্যক্তি তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন। হাসপাতালের মহিলা সার্জারি ওয়ার্ডে অজ্ঞাত পরিচয়ে চিকিৎসাধীন ছিলেন জাহানারা। তার সন্তান রমজান আলীকে দেখভাল করছিলেন ওয়ার্ডে দায়িত্বরত স্বাস্থ্যসেবী ও অন্য রোগীর স্বজনরা। অবুঝ শিশুটি মায়ের কাছে বসে আর্তনাদ করার ছবিসহ গতকাল গ্রামের কাগজে সংবাদ প্রকাশ হয়। সকালে পরিবারের লোকজনের নজরে আসে জাহানারা ও তার সন্তানের দুর্দশার চিত্র। কোন কালক্ষেপণ না করেই তারা হাসপাতালে ছুটে আসেন। শিশু রমজানকে দেখভালের দায়িত্ব নেন পরিবারের লোকজন। একই সাথে জাহানারার উন্নত চিকিৎসার জন্যে ডাক্তারদের দারস্থ হন।  জাহানারার চিকিৎসার দায়িত্বে ছিলেন সহকারী অধ্যাপক ডাক্তার অজয় কুমার সরকার। তিনি গ্রামের কাগজকে জানিয়েছেন, অজ্ঞাত পরিচয়ে রোগী ভর্তি হলেও সরকারিভাবে যতটুকু সম্ভব তাকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছিল। তার মাথার আঘাতটি খুবই গুরুতর। তার জ্ঞান ফেরেনি। উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার জন্যে পরিবারের লোকজনকে পরামর্শ দেয়া হয়েছে। ছাড়পত্র নিয়ে রোগীকে পরিবারের লোকজন নিয়ে গেছেন। এদিকে, এ রোগীর ছবি গ্রামের কাগজে দেখে তার চিকিৎসার দায়িত্ব নিতে হাসপাতালে ছুটে যান জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন। তবে তার আগেই রোগীর স্বজনরা তাদের নিয়ে যান।

Print
1517 মোট পাঠক সংখ্যা 1 আজকের পাঠক সংখ্যা

About admin

Close