সুন্দরবনে বন্দুকযুদ্ধে মজনু বাহিনীর সেকেন্ড ইন কমান্ড নিহত

যশোর এক্সপ্রেস ডেস্ক: সুন্দরবনে র‌্যাবের সাথে বন্দুকযুদ্ধে কুখ্যাত বনদস্যু মজনু বাহিনীর সেকেন্ড ইন কমান্ড মশিউর রহমান (৩০) নিহত হয়েছে। রবিবার সকালে সুন্দরবন পূর্ব বন বিভাগের চাঁদপাই রেঞ্জের চরা পুটিয়ার খাল এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। এসময় ঘটনাস্থল তল্লাশি চালিয়ে ২টি দোনলা বন্দুক, ৩টি একনলা কাটা বন্দুক, ২টি একনলা বন্দুক, ৩টি এলজি, ১টি এয়ার রাইফেল, ২৯ রাউন্ড বন্দুকের তাজা কার্তুজ, ১২৬ রাউন্ড পয়েন্ট ২২ বোর রাইফেলের গুলি, ২৯৭ রাউন্ড এয়ার গানের গুলি, ৩২টি বন্দুকের ফায়ারকৃত কার্তুজ (খোসা), ৫টি দেশীয় তৈরী ধারালো অস্ত্র/রামদা, ২টি বান্ডুলিয়ার, মোবাইল সেট, সিমকার্ডসহ বনদস্যুদের ব্যবহৃত বিপুল পরিমান রশদ সামগ্রী ও তৈজষপত্র উদ্ধার করা হয়।

র‌্যাব-৮ এর উপ অধিনায়ক মেজর আদনান কবির বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাবের একটি দল সকালে সুন্দরবন পূর্ব বন বিভাগের চাঁদপাই রেঞ্জের চরাপুটিয়ার খাল এলাকায় অভিযানে যায়। র‌্যাব সদস্যরা ওই এলাকায় টহল দেওয়ার সময় সকাল আনুমানিক সাড়ে ৯টার দিকে বনের গহিনে লুকিয়ে থাকা বনদস্যুরা র‌্যাবের উপর গুলিবর্ষন শুরু করে। এ সময় আত্মরক্ষায় র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। উভয় পক্ষের মধ্যে প্রায় ঘন্টা ব্যাপী এই বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। একপর্যায়ে বনদস্যুরা সুন্দরবনের গহিনে পালিয়ে গেলে র‌্যাব সদস্যরা ওই এলাকায় তাল্লাশি শুরু করে। এ সময়ে এক বনদস্যুর গুলিবিদ্ধ লাশ ও বনের ভিতরে এলোমেলো পড়ে থাকা ১১ টি আগ্নেয়াস্ত্র ও ৪৫০ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। পরে স্থানীয় জেলেরা গুলিবিদ্ধ লাশ বনদস্যু মজনু বাহিনীর সেকেন্ড ইন কমান্ড মশিউরের বলে সনাক্ত করে। মশিউর রহমান বনদস্যু “মজনু’’ বাহিনীর উপ-প্রধান ছিলেন। তার বাড়ি সাতক্ষীরা জেলার তালা উপজেলায়।

মেজর আদনান কবির জানান, বনদস্যু মজনু বাহিনী দীর্ঘ দিন ধরে সুন্দরবনের শ্যালাগাং, হারবাড়িয়া, শিবসা ও পশুর নদী এলাকায় জেলে ও বনজীবিদের অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায়সহ করে আসছিল। এঘটনায় মামলা দায়েরের পর উদ্ধারকৃত অস্ত্র ও সরঞ্জামসহ নিহত দস্যুর লাশ র‌্যাবের পক্ষ থেকে বাগেরহাটের মংলা থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

Print
1118 মোট পাঠক সংখ্যা 1 আজকের পাঠক সংখ্যা

About admin

Close