সোনালী ব্যাংকে ‘সুইফট’ জালিয়াতির মাধ্যমে তুরস্কে অর্থ পাচার

যশোর এক্সপ্রেস ডেস্ক: সোনালী ব্যাংকের শিল্প ভবন শাখার দুই কর্মকর্তার যোগসাজশে জালিয়াতির মাধ্যমে ২ কোটি টাকা তুরস্কে অর্থ পাচারের ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনায় জড়িত থাকার দায়ে ওই শাখার কর্মকর্তা মনোয়ার হোসেন ও সুইফট কাজের তদারককারী ও বার্তা বাহকের দায়িত্বপ্রাপ্ত এসইও মো. শাহ আলমের বিরুদ্ধে মতিঝিল থানায় ফৌজদারি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলাটি বর্তমানে দুদক তদন্ত করছে। বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। সোসাইটি ফর ওয়ার্ল্ড ইন্টারব্যাংক ফিন্যান্সিয়াল টেলিকমিনিউকেশন (সুইফট) মেসেজ হল আন্তর্জাতিক আর্থিক লেনদেনের নেটওয়ার্ক হিসেবে কাজ করে। এ ক্ষেত্রে এক ব্যাংক অন্য ব্যাংকে মেসেজ বা বার্তা পাঠানোর মাধ্যমে এক পক্ষ অন্য পক্ষকে অর্থ প্রদান করে।

সূত্রে জানা যায়, সোনালী ব্যাংকের শিল্প ব্যাংক শাখা থেকে ব্যাংকটির যুক্তরাজ্য শাখায় সুইফট মেসেজ জালিয়াতির মাধ্যমে সোনালী ব্যাংক লিমিটেড শিল্প ভবন করপোরেট শাখার গ্রাহক ভিনটেজ টেক্সটাইল কোম্পানির হিসাব হতে ২ কোটি টাকা তুরস্কের ‘তুর্ক টোকোনোমি ব্যাংকাশি এএস বেশিকতাস শাখার (Turk Tkonomi Bankasi A.S, Besiktas branch) গ্রাহক ডুডরু টপকগলুর (Dudru TOPCUGLU) হিসেবে জমা হয়েছে। যার হিসাব নং TR870003200000000014936937 জমা হয়। এই অর্থ তুরস্কের Nuruosmaniye branch হতে উত্তোলন করেন এবং Nadir Doviz ve Kiymetli Maden Tic A.S with IBAN number TR42000320002540000004455 এ জমা করা হয়।

ওই জালিয়াতির ঘটনায় শিল্প ভবন শাখায় সুইফট অপারেশনের সাথে জড়িত জুনিয়র অফিসার (আইটি) মনোয়ার হোসেন, সুইফট কাজের তদারক ও বার্তা বাহকের দায়িত্বপ্রাপ্ত এসইও মো. শাহ আলম জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়া যায়। জড়িতদের বিরুদ্ধে মতিঝিল থানায় ফৌজদারি মামলা দায়ের করা হয়। এ ছাড়া দুদক বিষয়টি তদন্ত করেছে। এ বিষয়ে সোনালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রদীপ কুমার দত্তের কাছে জানতে চাইলে তিনি কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি। দুদক জালিয়াতির কার্যক্রম মানিলন্ডারিংয়ের পর্যায়ভুক্ত করে তুরস্কের ফিন্যান্সসিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের সাথে যোগাযোগের মাধ্যমে বর্ণিত অর্থ বিদেশ থেকে ফেরত আনতে কাজ করছে। বিষয়টি অর্থ মন্ত্রণালয়ের ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের বৈঠকে তুরস্ক থেকে অর্থ আনার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। অর্থ ফেরত আনার বিষয়ে গত ১০ অক্টোবর Egmont Secured Web (ESW)-এর মাধ্যমে তুরস্কের আর্থিক গোয়েন্দা সংস্থার কাছে চিঠি দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক।

এই বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক শুভঙ্কর সাহা বলেন, ‘জালিয়াতির মাধ্যমে সোনালী ব্যাংকের শিল্প ব্যাংক শাখায় প্রায় ২ কোটি টাকা পাচারের ঘটনা ঘটেছিল। এ জন্য মতিঝিল থানায় ফৌজদারি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ ছাড়া দুদক বিষয়টি তদন্ত করছে। আর এই অর্থ ফেরত আনতে আমরা তুরস্কের আর্থিক গোয়েন্দা সংস্থার সাথে নিবিড়ভাবে কাজ করছি। আশা করছি এই বিষয়ে একটা সুরাহা হবে।’

Print
1069 মোট পাঠক সংখ্যা 3 আজকের পাঠক সংখ্যা

About admin

Close