৭ বছরের শিশু বাঁচালো ৪টি প্রাণ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: প্রিয়জনের মৃত্যু মানুষকে কতটা ব্যথিত করে তুলতে পারে তা কম বেশি সবারই জানা। তবে সে মৃত্যু যদি হয় নিজের সন্তানের তবে মা-বাবার হৃদয়ে হয়তো সারাজীবনই থেকে যায় সন্তান হারানোর ক্ষত। তবে সে ক্ষত বুকে চেপে রেখে সন্তানের অঙ্গে অন্য মানুষকে বাঁচানোর দৃষ্টান্ত বোধহয় খুবই বিরল। সম্প্রতি সে বিরল দৃষ্টান্তই স্থাপন করেছেন অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে বসবাসরত এক ভারতীয় দম্পতি। তাদের সন্তানের অঙ্গে কেবল একটি নয়, বেঁচে গেছে চারটি প্রাণ।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম দ্য লজিক্যাল ইন্ডিয়ান জানায়, গত জানুয়ারিতে ৭ বছর বয়সী ছেলে দেয়ান উদানিকে সঙ্গে করে মুম্বাইতে ছুটি কাটাতে আসেন ওই দম্পতি। ২২ জানুয়ারি তাদের অস্ট্রেলিয়ায় ফেরার কথা ছিল। তবে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে যাওয়ার দৃই ঘণ্টা আগে হঠাৎ করে ছেলের প্রচণ্ড মাথা ব্যথা শুরু হয় সে নিস্তেজ হয়ে পড়ে। তাকে নানাবাতি হাসপাতালে নেওয়া হলে দেয়ানের মস্তিষ্কে বেশ কয়েকটি জমাট (ক্লট) ধরা পড়ে। এরপর তাকে হিন্দুজা পূজা হাসপাতালে নেওয়া হলে ২৭ জানুয়ারি তার মাথায় অস্ত্রোপচার করা হয়। তবে অস্ত্রোপচারের পরও সাড়া দেয়নি দেয়ান। এরপর ৩০ জানুয়ারি তাকে ব্রেন ডেড ঘোষণা করা হয়।

সন্তানের অঙ্গগুলো দান করার মধ্য দিয়ে অন্যদের প্রাণ বাঁচানোর ইচ্ছে প্রকাশ করেন দেয়ানের মা-বাবা। সে সময় মাধবী নামের ৭ বছর বয়সী এক শিশুকে বাঁচাতে হৃদপিণ্ড খোঁজা হচ্ছিলো। বড়দের হৃদপিণ্ড ছোটদের দেহে স্থানান্তর করা যায় না। ওইসময় ৭ বছর বয়সী দেয়ানের হৃদপিণ্ড মাধবীকে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয় এবং ৩১ জানুয়ারি অস্ত্রোপচার হয়। মুম্বাইয়ের সবচেয়ে ছোট অঙ্গদাতা দেয়ানের যকৃত স্থানান্তর করা হয়েছে ৩১ বছর বয়সী এক ব্যক্তির দেহে। আর দুটো কিডনি স্থানান্তর করা হয় ১১ ও ১৫ বছর বয়সী দুই শিশুর দেহে। সূত্র: দ্য লজিক্যাল ইন্ডিয়ান, টাইমস অব ইন্ডিয়া

Print
1473 মোট পাঠক সংখ্যা 1 আজকের পাঠক সংখ্যা

About admin

Close