মাহমুদুর রহমানের মুক্তিতে প্রধান বিচারপতির হস্তক্ষেপ চায় বিএনপি

এক্সপ্রেস ডেস্ক: আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের মুক্তির জন্য প্রধান বিচারপতির হস্তক্ষেপ কামনা করেছে বিএনপি। রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সোমবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী এ দাবি জানান। রিজভী বলেন, ‘মাহমুদুর রহমানের ওপর সরকারের দেওয়া মামলা-কারা নির্যাতন, নিপীড়ণ বন্ধ করে তাকে অবিলম্বে মুক্তি দেওয়ার জন্য আমরা প্রধান বিচারপতির হস্তক্ষেপ কামনা করছি।’ তিনি বলেন, ‘আমরা দেখেছি আইনের পক্ষে, ন্যায়ের পক্ষে, সংবিধানের পক্ষে প্রধানবিচারপতি অভিভাবক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। এ কারণে তিনিই আমাদের ভরসাস্থল। তার কাছেই আমরা আবেদন করছি। তার হস্তক্ষেপে মাহমুদুর রহমানের মুক্তি হবে বলে আশা করছি। মাহমুদুর রহমানের ইতোমধ্যেই সাড়ে ১৪ কেজি ওজন হ্রাস হয়েছে এবং তিনি স্বাস্থ্যঝুকির মধ্যে রয়েছেন।’

তিনি বলেন, ‘আমার দেশ সম্পাদক নির্ভীক সাংবাদিক মাহমুদুর রহমান যখন ৭০টি মামলায় জামিন পেয়ে মুক্তির প্রহর গুনছিলেন তখনই সকল মামলায় উচ্চ আদালত থেকে জামিন পাওয়ার পরও তাকে নতুন করে আটকে রাখার জন্য সরকার একের পর এক বেড়াজাল নির্মাণ করে চলছে। এটা দিনের আলোর মতো পরিষ্কার সিএমএম সরকারের নির্দেশের অপেক্ষায় ছিলেন। অথচ আইজি সাহেব এর আগে বলেছেন, নতুন মামলা দিয়ে কাউকে শ্যোন অ্যারেস্ট করা যাবে না। এটা বিচার বিভাগে ন্যক্কারজনক অধ্যায় হিসেবে চিহিৃত হবে।’

রিজভী বলেন, ‘একটি মামলায় পিডব্লিউ আদেশ প্রত্যাহারের পর রবিবার অপরাহ্ন থেকে মাহমুদুর রহমানের মুক্তির ক্ষেত্রে কোনো বাধাই ছিল না। সিএমএম দুই সপ্তাহ সময়ক্ষেপণ করে নতুন একটি মামলায় মাহমুদুর রহমানকে শ্যোন অ্যারেস্ট দেখিয়েছে। ২০১৩ সালের জানুয়ারি মাসে শাহবাগ থানায় দায়ের হওয়া মামলা নম্বর ৫০(১)/১৩ তে তাকে শ্যোন অ্যারেস্ট দেখানো হয়। এ মামলায় তার কোনো নামগন্ধ ছিল না।’ গতকাল রাতে (রবিবার) রাজধানীর মুগদা এলাকা থেকে যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক আ ক ম মোজাম্মেল হককে গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদও জানান রিজভী। তিনি বলেন, ‘এখন দেশে কি কোনো আন্দোলন চলছে বা এমন কি কোনো পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে যে একটা অজুহাত তৈরি করে বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করতে হবে।’ অবিলম্বে তার সকল মামলা প্রত্যাহার করে মুক্তির দাবি করেন তিনি। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নাজিম উদ্দিন আলম, যুব বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক খায়রুল কবির খোকন, সহদফতর সম্পাদক আব্দুল লতিফ জনি প্রমুখ।

Print
766 মোট পাঠক সংখ্যা 1 আজকের পাঠক সংখ্যা

About admin

Close