তুরস্কের ব্যর্থ অভ্যুত্থান: যা বললেন ‘ট্যাংকম্যান’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ‘আমার মৃত্যু যদি অনেকের মৃত্যু ঠেকাতে পারে, আমার দেশকে রক্ষা করতে পরে, তবে আমি শতবার এই কাজ করব।’ কথাগুলো বলেছেন মেতিন দোগান। তিনি এখন তুরস্কের ‘ট্যাংকম্যান’ নামে পরিচিত। ১৫ জুলাই অভ্যুত্থানচেষ্টার সময় তিনি ইস্তাম্বুলের আতাতুর্ক বিমানবন্দরের কাছে ট্যাংক প্রতিরোধ করার সময় ভয়ঙ্কর এই অস্ত্রের সামনে শুয়ে পড়েছিলেন। ওই ছবি সারা দুনিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে, অভ্যুত্থানচেষ্টা প্রতিরোধের প্রতীকে পরিণত হয়েছে। আনাদোলু বার্তা সংস্থা জানিয়েছে, ওই ঘটনাটি নির্মিতব্য ‘জুলাই ১৫ ন্যাশনাল উইল মনুমেন্টে’ স্থান পাবে। মালাতিয়া প্রদেশে সেটি নির্মাণ করা হচ্ছে। মেতিন এ সম্পর্কে বলেন, ‘দেশের জন্য জীবন দানের’ আইডিয়া মূর্ত করার জন্য মনুমেন্টটি নির্মাণ করা হচ্ছে। ৪০ বছর বয়স্ক মেতিন মেডিক্যাল ছাত্র। তিনি খালে গায়ে প্রথমে ভয়ঙ্কর লিওপার্ড ট্যাংকের সামনে দাঁড়ান। তারপর সরাসরি সেটির সামনে শুয়ে পড়েন। তার এই সাহসিকতা ১৯৮৯ সালে চীনের তিয়ানমেন স্কয়ারে এক বিক্ষোভকারীর ট্যাংকের সারির সামনে দাঁড়ানোর সাথে তুলনা করা হচ্ছে।

Print
777 মোট পাঠক সংখ্যা 3 আজকের পাঠক সংখ্যা

About Jessore Express

Close