নওয়াপাড়া নৌ বন্দর অচল হয়ে পড়েছে

এক্সপ্রেস ডেস্ক: টানা ছয়দিনের কর্মবিরতি পালনে মারাত্মক প্রভাব পড়েছে শিল্প-বাণিজ্য বন্দর নগরী নওয়াপাড়ায়। বন্দরে আটকে আছে ১৭০টি কার্গো। এসব কার্গো থেকে খালাসের অপেক্ষায় রয়েছে হাজার হাজার টন কয়লা, ক্লিংকার, সার, সিমেন্টসহ নানা ধরনের খাদ্যশস্য। ঘাটে লোড আনলোডের কাজ বন্ধ থাকায় বেকার হয়ে পড়েছে প্রায় আট হাজার শ্রমিক। দেশের বৃহৎ কয়লা আমদানিকারক সাহারা ট্রেডিংয়ের ব্যবস্থাপক লালন হোসেন জানান, তাদের কোম্পানির চার হাজার টন আমদানিকৃত কয়লা নওয়াপাড়া বন্দরে আনলোডের অপেক্ষায় আছে। শ্রমিকরা প্রতিদিন ২০০ টন কয়লা আনলোড করতে পারে। কিন্তু বন্দরে জাহাজি শ্রমিকদের কর্মবিরতি পালন করায় কোনো আনলোডের কাজ চলছে না। এদিকে, ইট ভাটার মৌসুম শেষের পথে এ মুহূর্তে কয়লার সংকট পড়লে ভাটা মালিকরা দারুণ সমস্যায় পড়বে। তিনি শ্রমিকদের দাবি মেনে নিয়ে সমস্যার দ্রুত সমাধানের জন্য মালিক ও সরকারের কাছে আহবান জানিয়েছেন। ব্যাংক কর্মকর্তারা জানান, কয়েকদিনের ধর্মঘটে লেনদেন অর্ধেকে নেমে এসেছে। সার সিমেন্ট কয়লা ব্যাবসায়ী মোজাফ্ফার আহমেদ জানান, মাল আনলোড না হওয়ায় কোনো বেচাকেনা নেই। লোড আনলোডে নিয়োজিত হ্যান্ডলিংক শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলাম সরদার জানান, লোড আনলোডের কাজ বন্ধ থাকায় প্রায় আট হাজার শ্রমিক বেকার হয়ে পড়েছে। কর্মবিরতির ষষ্ঠ দিনেও নওয়াপাড়ায় শ’ শ’ নৌ-যান শ্রমিক মিছিল সমাবেশ করেছে। নওয়াপাড়া নৌ-যান শ্রমিক ফেডারেশনের অফিস সেক্রেটারি নিয়ামুল হক রিকো জানান, দাবি না মানা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাবেন তারা।

Print
349 মোট পাঠক সংখ্যা 1 আজকের পাঠক সংখ্যা

About admin

Close