দুটি বিষয় সামনে রেখে চলছে তদন্ত

এক্সপ্রেস ডেস্ক: পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা আক্তার মিতুর হত্যাকারীদের ধরতে দু’টি বিষয় সামনে রেখে তদন্ত কাজ চালাচ্ছে কাউন্টার টেরোরিজম (সিটি) ইউনিট। মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া সেন্টারে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে এমনটাই জানান সিটি ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘বাবুল আক্তারের স্ত্রীর হত্যাকারীদের ধরতে দু’টি বিষয় সামনে রেখে তদন্ত করা হচ্ছে। এর একটি হলো ভিকটিমের তথ্য, অন্যটি খুনের ধরন।’ ‘তবে এখানে বাবুল আক্তার নিজেই ভিকটিম। কারণ তার কাজের জন্যই খুন করা হয়েছে স্ত্রীকে। এ জন্য বাবুল আক্তারের সার্বিক তথ্য যাচাই বাছাই করে দেখা হচ্ছে। আশা করছি এখান থেকে খুনিদের সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য পাওয়া যাবে’ বলেন মনিরুল ইসলাম। তিনি আরো বলেন, ‘খুনিদের ধরতে খুনের ধরনও একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। কারণ গতবছরের অক্টোবর মাস থেকে যে সব হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে, সেগুলো প্রায় সবগুলোই গলাকেটে অথবা ছুরিকাঘাত করে। এরমধ্যে শুধু জুলহাস তনয় ও তার বন্ধুকে হত্যার সময় গুলি করা হয়েছিল। আবার মিতুকেও ছুরিকাঘাত করার পরে গুলি করে মৃত্যু নিশ্চিত করা হয়েছে।’ তাই এই দু’টি বিষয় সামনে রেখে তদন্ত কাজ চালিয়ে যেতে পারলে খুব শিগগিরই হত্যাকারীদের ধরা সম্ভব হবে বলেও আশাপ্রকাশ করেন সিটির প্রধান মনিরুল ইসলাম। বাবুল আক্তারের স্ত্রীর হত্যার ঘটনায় পুলিশের ওপর মনস্তাত্ত্বিক কোনো প্রভাব পড়েছে কি না? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘না, এটা পুলিশের ওপর কোনোভাবেই মনস্তাত্বিক প্রভাব ফেলবে না। কারণ পুলিশ আর সাংবাদিকরা যোগদানের আগে থেকেই জানেন যে এটা ঝুকিপূর্ণ পেশা। তাই এ ধরনের ঘটনায় কোনভাবেই তাদের ওপর মনস্তাত্বিক প্রভাব ফেলবে না।’ এরআগে, রোববার (৫ জুন) সকালে চট্টগ্রাম নগরের জিইসি মোড়ে প্রকাশ্যে ছুরিকাঘাত ও গুলি করে পুলিশ সুপার (এসপি) বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা আক্তার মিতুকে খুন করে দুর্বৃত্তরা। এঘটনায় সোমবার দুপুরে অজ্ঞাত তিনজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন বাবুল আক্তার। তবে এ ঘটনায় কাউকে গ্রেপ্তারের কথা জানায়নি পুলিশ।

Print
957 মোট পাঠক সংখ্যা 1 আজকের পাঠক সংখ্যা

About Jessore Express

Close