নিজের ছেলেকে গুলি করলেন চেয়ারম্যান!

এক্সপ্রেস ডেস্ক: যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার নির্বাসখোলা ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম নিজের ছেলে সোহাগের (২২) পায়ে গুলি করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। সোহাগ প্রথমে এ কথা স্বীকার করলেও এখন অস্বীকার করছেন। শুক্রবার রাত আটটার দিকে নিজ বাড়িতে গুলিবিদ্ধ হওয়ার পর স্বজনরা সোহাগকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে আনেন। জেনারেল হাসপাতালের রেজিস্ট্রারে ‘সোহাগ গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ভর্তি হয়েছেন’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। হাসপাতালে ভর্তির পর গুলিবিদ্ধ সোহাগ জানান, শুক্রবার রাত আটটার দিকে তার বাবার সঙ্গে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে তর্কাতর্কি হয়। এক পর্যায়ে ক্ষিপ্ত হয়ে বাবা নজরুল ইসলাম লাইসেন্স করা শটগান দিয়ে তার পায়ের গোড়ালিতে এক রাউন্ড গুলি করেন। পরে অবশ্য সোহাগ নিজের বক্তব্য পাল্টে ফেলে বলেন, ‘পড়ে গিয়ে আঘাত লাগায়’ তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হাসপাতালের জরুরি বিভাগে দায়িত্বরত ডা. কল্লোলকুমার সাহা জানান, সোহাগের পায়ে গুলি করা হয়েছে। হাসপাতাল রেজিস্ট্রারেও সেভাবেই লেখা হয়েছে। তবে অভিযুক্ত চেয়ারম্যান নজরুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। যশোর জেনারেল হাসপাতালের ওয়ার্ড চিকিৎসক প্রিয়াংকা জানান, সোহাগ আশংকামুক্ত সে কথা বলা যাবে না। তার পায়ের গোড়ালিতে গুলি করা হয়েছে।  ঝিকরগাছা থানার ওসি খবির উদ্দিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এ ধরনের কোনো খবর আমার জানা নেই। তবে, অভিযোগ পেলে চেয়ারম্যান বলে ছাড় দেওয়া হবে না। তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’নজরুল ইসলাম নির্বাসখোলা ইউনিয়নের সাদীপুর গ্রামের বাসিন্দা এবং ওই ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান। তার ছেলে সোহাগ দীর্ঘদিন বিদেশে থাকার পর তিন মাস আগে দেশে ফেরেন।

Print
1901 মোট পাঠক সংখ্যা 1 আজকের পাঠক সংখ্যা

About Jessore Express

Close