নাম-পরিচয়হীন এসব শিশুদের ভবিষ্যৎ কী?

এক্সপ্রেস ডেস্ক: বাংলাদেশে পরিত্যক্ত অবস্থায় কম বয়সী শিশুদের উদ্ধারের ঘটনা নতুন নয়। কখনো এরকম দুএকটি উদ্ধারের ঘটনা সংবাদমাধ্যমে বড় বড় শিরোনাম হয়। কিন্তু বেশীরভাগ ঘটনাই থেকে যায় অপ্রকাশ্য। পিতৃ-মাতৃহীন, পরিত্যক্ত এসব শিশুর ঠিকানা কোথায় হয়? কিভাবে তারা বেড়ে ওঠে? বড় হয়েই বা তারা কোথায় যায়? ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শিশু বিভাগের একটি ওয়ার্ডের সারি সারি বিছানায় শুয়ে আছে কমবয়সী অসুস্থ শিশুরা। এদের মধ্যেই একজন রয়েছে ডাক্তারদের বিশেষ নজরদারীতে। ডক্টরস স্টেশনের পাশেই একটি বেবিকটে শুইয়ে রাখা হয়েছে শিশুটিকে। সে একটি কন্যাশিশু। মোটে দু’মাস বয়েস তার। এরই মধ্যে তার শরীরে বড় ধরণের একটি অস্ত্রোপচার হয়ে গেছে। জন্মের পরপরই তার পিতামাতা তাকে এই হাসপাতালেই ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। তবে নিবন্ধন খাতায় তার মায়ের নাম আসমা লেখা ছিল বলে তাকে ডাকা হচ্ছে ‘বেবি অব আসমা’ নামে। সাতান্ন দিন ধরে বেবি অব আসমাকে নিবিড়ভাবে চিকিৎসাসেবা দিচ্ছেন শিশু বিভাগের অধ্যাপক কানিজ হাসিনা শিউলি আর তার সহকারীরা। আর শিশুটির অভিভাবকের দায়িত্ব পালন করছেন হাসপাতালেরই একজন চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী ওসমান গণি। বেবি অব আসমা সেরে উঠলে তার আইনগত অভিভাবকত্বও পেতে চান এই যুবক। এজন্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে একটি আবেদনও করে রেখেছেন মি. গনি। গত বছরের (২০১৫) সেপ্টেম্বর মাসে ঢাকার পুরনো বিমানবন্দর এলাকায় একটি নবজাতককে পরিত্যক্ত অবস্থায় পাওয়া গিয়েছিল, যাকে মৃত মনে করে কুকুর একটি খেতে শুরু করেছিল। কিন্তু ভাগ্য শিশুটির পক্ষে ছিল। একদল মানুষ দৃশ্যটি দেখে কুকুরের দলটিকে তাড়িয়ে শিশুটিকে নিয়ে আসে হাসপাতালে। দীর্ঘ চিকিৎসার পর শিশুটির এখন জায়গা হয়েছে আজিমপুরের ছোটমণি নিবাসে। কমবয়সী পরিত্যক্ত এবং দাবিদারহীন শিশুদের এনে রাখা হয় সরকারের এই প্রতিষ্ঠানে। শিশুটির নাম রাখা হয়েছে ফাইজা। ফাইজা অর্থ বিজয়িনী। সেখানে তাদের খেলার ব্যবস্থা আছে, বিনোদনের জন্য টিভি রয়েছে, রয়েছে নানা শিক্ষামূলক উপকরণ। এরা সবাই পিতৃ-মাতৃহীন, পরিত্যক্ত। কেউ জানে না এদের ঠিকানা কোথায়, আত্মীয় পরিজন কারা। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন স্থান থেকে এদের উদ্ধার করা হয়েছে। এখন রাষ্ট্রীয় আশ্রয়ে আছে তারা। এরই মধ্যে যদি আদালতের মাধ্যমে কেউ এদের অভিভাবকত্ব না নেয়, তাহলে তাদের জায়গা হয় সরকারেরই আরেক প্রতিষ্ঠান শিশু পরিবারে।

Print
920 মোট পাঠক সংখ্যা 1 আজকের পাঠক সংখ্যা

About Jessore Express

Close