যশোর কারাগারের সামনে বাহিনীর প্রধান হেমায়েতকে গুলি করে হত্যা

এক্সপ্রেস ডেস্ক:  যশোর কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে জামিনে বাইরে আসা মাত্র সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হয়েছেন হেমায়েত উদ্দিন (২৮) নামে এক যুবক। সে যশোর সদর উপজেলার মন্ডলগাতি এলাকার জিন্নাত আলীর ছেলে। হেমায়েত ওই অঞ্চলের হেমায়েত বাহিনীর প্রধান। যশোর কোতয়ালী থানার এএসআই নাহিয়ান জানান, একটি অস্ত্র মামলায় জামিন পেয়ে সোমবার সন্ধ্যার পর কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে বের হয় হেমায়েত। কারা ফটকের পাশেই অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা মোটর সাইকেলে এসে তাকে গুলি করে।

যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র সুপার শাজাহান আহমেদ বলেন, ‘রাত আটটার ১০/১৫ মিনিট আগে মুক্তি পেয়ে হেমায়েত কারা ফটকের সামনের সড়ক পর্যন্ত গিয়েছিলেন। এ সময় দুটি মোটরসাইকেলযোগে এসে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা তাকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে।’ ‘কারাগারের প্রধান ফটকে দায়িত্বরত রক্ষীরা দুর্বৃত্তদের ধাওয়া করে। এ সময় দুটি মোটরসাইকেলের একটি দুই দফা পড়ে যায়। ফলে দুর্বৃত্তরা সেটি ফেলেই পালিয়ে যায়।’ সিনিয়র সুপার বলেন, ‘কারারক্ষীরা আমাকে বিষয়টি ফোনে জানানোর সঙ্গে সঙ্গে আমি বাসভবন থেকে বেরিয়ে আসি। রক্ষীদের কাছ থেকে জানতে পারি, দুর্বৃত্তরা হেমায়েতকে লক্ষ্য করে প্রথম দুই রাউন্ড গুলি ছোড়ে। পরে মৃত্যু নিশ্চিত করতে পড়ে থাকা হেমায়েতের মাথায় আরেক রাউন্ড গুলি করে পালিয়ে যায়।’

এদিকে, গুলিবিদ্ধ হেমায়েতকে উদ্ধার করে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান কোতয়ালী থানার এসআই শাহাবুল। জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক আব্দুল্লাহ আল মামুন রাত আটটায় জানান, হাসপাতালে আনার আগেই ওই হেমায়েতের মৃত্যু হয়েছে। রাত আটটায় জানতে চাইলে সহকারী পুলিশ সুপার (খ সার্কেল) বিল্লাল হোসেন বলেন, ‘আমার সরকারি বাসভবনের সামনে (জেলখানা-লাগেয়া) এক যুবককে দুর্বৃত্তরা গুলি করে পালিয়ে গেছে। উপস্থিত লোকজনের সহায়তায় কোতয়ালী থানার এসআই শাহাবুল তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেছেন। উল্লেখ্য, হেমায়েত বাহিনীর প্রধান হেমায়েত আলীকে ১৯ এপ্রিল আটক করেছে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে পাঁচটি হত্যা মামলা, বোমাবাজিসহ অর্ধডজনের বেশি মামলা রয়েছে।

Print
1672 মোট পাঠক সংখ্যা 1 আজকের পাঠক সংখ্যা

About Jessore Express

Close