উপবৃত্তির টাকা আত্মসাতের অভিযোগে প্রধান শিক্ষক অবরুদ্ধ

এক্সপ্রেস ডেস্ক: বাগেরহাট জেলার মোরেলগঞ্জে একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগে প্রধান শিক্ষিকাকে অবরুদ্ধ করেছেন অভিভাবকরা। মঙ্গলবার দুপুর ২টায় ১০৮ নম্বর উত্তর বারইখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। ক্ষুব্ধ অভিভাবকরা দুপুর ১২টা থেকে ২টা পর্যন্ত ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকা খালেদা বেগমকে তার কক্ষে অবরুদ্ধ করে রাখেন।

খবর পেয়ে কয়েকজন শিক্ষক নেতা ওই বিদ্যালয়ে গিয়ে অভিভাবকদের দাবিকৃত বকেয়া টাকা ফেরত দিয়ে প্রধান শিক্ষিকাকে মুক্ত করেন। এ সময় ক্ষুব্ধ অভিভাবকরা প্রধান শিক্ষিকার অপসারণ দাবি করেন।

ভুক্তভোগী অভিভাবকদের অভিযোগ, প্রথম শ্রেণির ছাত্র আব্দুল্লাহ পেয়েছে ৩০০ টাকা অথচ স্বাক্ষর নেওয়া হয়েছে ৯০০ টাকার বিপরীতে, প্রথম শ্রেণির তামান্না আক্তারের নামে আসে ৯০০ টাকা কিন্তু তাকে দেওয়া হয়েছে ৩০০ টাকা।

তৃতীয় শ্রেণির সাদিয় আক্তারকে দেওয়া হয়েছে ৬০০ টাকা। তার নামে বরাদ্দ রয়েছে ১২শ’। চতুর্থ শ্রেণির হাফিজুর মীরের নামে ১২০০ টাকা বরাদ্ধ থাকলেও তাকে দেওয়া হয়েছে ৬০০ টাকা। চতুর্থ শ্রেণির চাঁদনী ও তার ভাই রাব্বির নামে ২৪ টাকা মাষ্টার রোলে পরিশোধ দেখানো হলেও তাদেরকে দেওয়া হয়েছে ১৮শ টাকা। ৪র্থ শ্রেণির সিফাত উল্লাহর পিতা চান মিয়া বলেন, তার ছেলের নামে ১২০০ টাকা মাষ্টার রোলে পরিশোধ দেখিয়ে দিয়েছে মাত্র ৫শ’। তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র সজীবের মা মনিরা বেগম জানান, তার ছেলের নামে মাস্টার রোলে ১২০০ টাকা পরিশোধ দেখিয়ে দিয়েছে মাত্র ৬০০ টাকা। অভিভাবক শাহিনুর বেগমের তিন সন্তানের নামে ২৭শ’ টাকা পরিশোধ দেখালেও মাত্র ১৫শ’ টাকা হাতে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

এ সম্পর্কে জানতে চাইলে সংশ্লিষ্ট ক্লাস্টারের সহকারি শিক্ষা অফিসার মো. নজরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, খুব দ্রুতই এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে আর এক শিক্ষা অফিসার বলেন, শিক্ষার্থীদের ন্যায্য পাওনা যথাযথভাবে বুঝিয়ে দেওয়া হবে। যদি কেউ অনিয়ম করে থাকে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Print
972 মোট পাঠক সংখ্যা 1 আজকের পাঠক সংখ্যা

About Jessore Express

Close