যশোরে কিশোরী অপহরন মামলা

প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় স্কুল পড়–য়া শিক্ষার্থী ফরিদা আক্তার মিম (১৩) কে জোরপূর্বক অপহরণের অভিযোগে কোতয়ালি মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। ঘটনাটি যশোর শহরের বারান্দীমোল্যাপাড়া বাঁশতলার জাহাঙ্গীরের বাড়ির সামনে।

আসামীরা হচ্ছে, সদর উপজেলার হামিদপুর সাইফুলের বাড়ির ভাড়াটিয়া দুখু মিয়ার ছেলে তাহিন ইসলাম, স্ত্রী তাজিয়া বেগম ও দুখু মিয়া।

যশোর শহরের বারান্দীমোল্যা পাড়ার শওকত আলীর ছেলে শেখ মনির হোসেন রনি বিকেলে কোতয়ালি মডেল থানায় দায়েরকৃত এজাহারে বলেছেন, তার মেয়ে ফরিদা আক্তার মিম মোল্যাপাড়া বাঁশতলা আইডিয়াল স্কুলে অষ্টম শ্রেনীতে লেখাপড়া করে। স্কুলে আসা যাওয়ার সময় তাহিন ইসলাম তাকে উত্যক্তসহ প্রেমের প্রস্তাব দেয়। প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় তাহিন ইসলাম ক্ষিপ্ত হয়ে কিশোরীকে অপহরনের সুযোগ খুঁজতে থাকে। মিমের কাছ থেকে জানার পর পিতা শেখ মনির হোসেন রনি তাহিনের পিতা মাতাকে জানালে তারা বিষয়টি উল্টো উশকানি দেয়। গত ৯ জুন মঙ্গলবার সকালে মিম বাড়ির সামনে দোকানে কেনাকাটার জন্য যায়। সেখানে ওৎপেতে থাকা তাহিন ইসলামসহ সহযোগীরা প্রাইভেট কারযোগে কিশোরীকে ফুসলিয়ে তুলে মনিহারের দিকে নিয়ে যায়।

এ ঘটনায় কোতয়ালি মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করা হয়। পুলিশ কিশোরীকে উদ্ধার করতে পারেনি।

Print
441 মোট পাঠক সংখ্যা 11 আজকের পাঠক সংখ্যা

About Jessore Express

Close